হালাল ভালোবাসা এতো সুন্দর আগে বুঝতে পারেননি সানা খান


বলিউডের লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশন লাইফ ছেড়ে ধর্মের পথে চলার ঘোষণা দিয়েছিলেন অভিনেত্রী সানা খান। এরপর সম্প্রতি বিবাহ করেছেন অনাস খান নামের এক মুফতিকে। বিয়ের পর সোশ্যাল মিডিয়া থেকে তার অতীতের সব ছবি সরিয়ে ফেলার জন্য সবাইকে অনুরোধ করেন তিনি। এবার তার আরেকটি উপলব্ধি আলোচনায় এসেছেন সাবেক এই অভিনেত্রী। তিনি বলেন, হালাল ভালোবাসা এতো সুন্দর আগে বুঝতে পারেননি!

সানা খান। বলিউডের ঝলমলে দুনিয়া ছেড়ে বেছে নিয়েছেন শান্তির পথ। ইসলামের বিধি-বিধান অনুযায়ী জীবনযাপনের জন্য সানা বেছে নিয়েছেন ত্যাগের জীবন। যে জীবনকে ধারণ করেছেন, সেখানে ঝলমলে দুনিয়ার জীবনযাপনের কোনো মূল্য নেই। তাইতো নিজেকে সেভাবেই গুছিয়ে নিয়েছেন তিনি। নিজের জীবনযাপনের জন্য বেছে নিয়েছেন জীবনসঙ্গী।

সানা খান এমন একজনকে নিজের সারা জীবনের সঙ্গী হিসেবে বেছে নিয়েছেন, যিনি একজন ধার্মিক মানুষ। ইসলামের শিক্ষায় শিক্ষিত হয়েছেন। পড়াশোনা করেছেন ইসলাম নিয়ে। জীবনযাপন করেন ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক। মাওলানা মুফতি আনাস ভারতের গুজরাটের বাসিন্দা।

বিয়ের পর ভালবাসায় ডুবে সানা। ইনস্টাগ্রামে স্বামীর সঙ্গে ছবি পোস্ট করে লিখলেন, ‘কখনও ভাবিনি হালাল ভালবাসা এতো সুন্দর হতে পারে! তোমায় বিয়ে করার পর অনুভব করেছি। সব হালাল কাজেই পুণ্য হয়।’

তার আগে ইনস্টাগ্রামে মেহেদি পরা হাতের ছবি দিয়েছিলেন সানা লিখেছিলেন, ‘আমার ভালোবাসা পবিত্র না হলে এতো চড়়া মেহেদির রং আসত না।’

তিনি লিখেছিলেন, ‘আল্লাহর জন্যই একের অপরকে ভালোবেসেছেন। আল্লাহর জন্য বিয়ে করেছেন। এই দুনিয়ায় আল্লাহ আমাদের একসঙ্গে রাখুন। জন্নতেও যেন আবার মিলিয়ে দেন।’



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: