latest

How this Tumpa Song goes Viral in Social media?


বিদিশা চট্টোপাধ্যায়:‌ কালীপুজোর (Kali Puja) আগে ৯ অক্টোবর মুক্তিপ্রাপ্ত ‘রেস্ট ইন প্রেম’–এর প্রোমোশনাল মিউজিক ভিডিও ‘টুম্পা’ এখন পশ্চিমবঙ্গের (West Bengal) মানুষের ঘরে–ঘরে, মুখে-মুখে, ফোনে–ফোনে বাজছে। এমনকী ‘খোকা’–র বিয়েতে, ‘খোকা’ (অনির্বাণ ভট্টাচার্য) এবং ‘মালিক’ (সৃজিত মুখোপাধ‌্যায়) মিলে এই ‘ভাসান’ নাচে পা মিলিয়েছেন। এই গানের ভিউ এখন তিরিশ মিলিয়ন! বাংলায় এই ইন্ডিপেনডেন্ট ওয়েব সিরিজটির সাফল‌্য তাবড় তাবড় প্রোডাকশন হাউসকেও পিছনে ফেলে দিয়েছে।

এই প্রসঙ্গে কী বলছেন অনস্ক্রিন ‘টুম্পা’র (Tumpa Song) নায়ক সায়ন ঘোষ! “ভাল লাগছে খুবই। তবে এটা তো বিজ্ঞাপনী গান। যে ওয়েব সিরিজ (Web Series) ‘রেস্ট ইন প্রেম’–এর গান, সেটা মানুষ আরও বেশি করে দেখলে খুশি হব।” আট থেকে আশি সকলের ভাল লাগছে কেন? চটুল বলে? মানতে নারাজ সায়ন। “আমার মনে হয় যে কোনও সহজ জিনিস খুব ইউনিভার্সাল। আর এটা এমন একটা আইটেম সং যার কোনও ডবল মিনিং নেই। আমার কাছে এটা প্রেমের গান। এখানে মিসোজিনি বা অবজেক্টিফিকেশন এড়িয়ে যাওয়া হয়েছে। দেখছেন না ‘টুম্পা’র চোখ ফ‌্যাকাশে সাদা, লোকে চমকাবে, ঘাবড়াবে। পোশাক দেখার আগে চোখ পড়বে সুমনার (টুম্পার চরিত্রে) চোখে। মাইন্ড ডাইভার্ট হবে। আর লিরিক তো প্রেমের। সবাই বলছে সর্বহারার প্রেমের গান”, বলছিলেন সায়ন। ‘রেস্ট ইন প্রেম’–এর এপিসোড তুলে নেওয়া নিয়েও কাউকে দোষারোপ করতে চান না সায়ন এবং যে কারণে এপিসোডটা তুলে নেওয়া হয়েছিল, সেটা অন‌্যায‌্য বলেই মনে করেন অভিনেতা। সব ভাল যার শেষ ভাল। এখন পাঁচটা এপিসোডই ইউটিউব-এ দেখা যাচ্ছে।

[আরও পড়ুন: লাল পোশাকে মোহময়ী অবতারে ভিডিও পোস্ট মিমির, আবির বললেন, ‘ভয় পাচ্ছি…’]

‘টুম্পা’ গানটির গীতিকার এবং গায়ক আরব দে। মিউজিক করেছেন অভিষেক সাহা। আরব জানালেন, বহুদিনের বন্ধু পরিচালক অরিজিৎ সরকার তাঁকে একটা মজার আইটেম সং লিখতে বললে ‘টুম্পা’র জন্ম হয়। ‘আমি প্রথম থেকেই ভালগার, ডবল মিনিং আইটেম সং লিখতে চাইনি। তাই খুব কনশাসলি সাধারণ মানুষের চাওয়া–পাওয়া নিয়ে একটা সাদামাঠা গান লিখেছি। এটা খুব নিরামিষ গান! তবে কেউ কেউ গানটিকে মিসোজিনিস্ট বলেছেন, অপছন্দও করেছেন ভোজপুরি গানের ধাঁচ রয়েছে বলে। গানটা মিসোজিনিস্ট নয় মোটেই।’

এই গানের এমন জনপ্রিয়তা কেন? ভাইরাল কীভাবে? আরব বললেন, ‘সাবঅলটার্ন মানুষ বা নিম্ন–মধ‌্যবিত্ত মানুষের যে ভাললাগা– পোচ–ওমলেট খাওয়া, খৈনি খাওয়া বা দিঘায় যাওয়ার স্বপ্ন – এইসব কিছুই পপ কালচারে অবহেলিত। এই গান তাদের কথা বলে। এদের কথা গানে বা সিনেমায় কম আসে, এটাও হয়তো একটা কারণ। তবে এতটা জনপ্রিয় হবে ভাবিনি। সবচেয়ে মজার ব‌্যাপার, আমাদের বাড়িওয়ালা বলেছেন, তোমাদের গান–টান করে ভাগ‌্য ফিরেছে, এবার বেশি ভাড়া দিতে হবে’, হাসতে হাসতে বললেন আরব। পরিচালক অরিজিৎ সরকারের কাছ থেকে জানা গেল, ‘২০১৯ সালের শীতকালে আমরা আঠাশ জন বন্ধু যারা কোনও না কোনওভাবে ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে যুক্ত, তারা সকলে মিলে কারও মুখাপেক্ষী না হয়ে নিজেরা টাকা তুলে প্রায় পিকনিকের মতো করে এই ওয়েব সিরিজ বানিয়ে ফেলি। তবে রিলিজ করতে একটু দেরি হয় লকডাউনের কারণে।’

[আরও পড়ুন: ভারতী-হর্ষের মাদক মামলার শুনানিতে আদালতে গরহাজির, সাসপেন্ড NCB’র দুই আধিকারিক]





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: