টুর্নামেন্টের সবচেয়ে সুন্দর জিনিস খুঁজে পেয়েছেন মুশফিক


টুর্নামেন্টের সবচেয়ে সুন্দর জিনিস খুঁজে পেয়েছেন মুশফিক

বেশ নাটকীয়ভাবে হাই পারফরম্যান্স ইউনিটে ডাক পান তরুণ পেসার শফিকুল ইসলাম। সেখান থেকে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ড্রাফটে। দলও পেয়েছেন তিনি। শফিকুলকে সুযোগ দিয়েছে বেক্সিমকো ঢাকা। দলটির অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম জানালেন, শফিকুলকে দমিয়ে রাখা সম্ভব নয়।

ফিল্ডিংয়ের বেহাল দশা মানতে পারছেন না মুশফিক

২০১৮ সালে প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে নাম লেখান শফিকুল। পরের বছর অর্থাৎ ২০১৯ সালে বাংলাদেশ ‘এ’ দলের হয়ে আফগানিস্তান ‘এ’ দলের বিপক্ষে সিরিজের স্কোয়াডে ডাক পান। ঐ বছরই বাংলাদেশ ইমার্জিং দলের হয়ে শ্রীলঙ্কা সফর করেন এই ডানহাতি পেসার। ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের কন্ডিশনিং ক্যাম্পেও।

Also Read – রিয়াদের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে খুলনার টানা তৃতীয় জয়

সবমিলিয়ে ৪টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচের সাথে ৫টি লিস্ট-এ ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা ছিল ২৩ বছর বয়সী তরুণের। এবছর বেশ নাটকীয়ভাবে এইচপি স্কোয়াডে ডাক পান শফিকুল। সেই ক্যাম্পে নিজেদের মধ্যে ভাগ হয়ে খেলা ম্যাচে দারুণ পারফর্ম করেন। ভাগ্য সুপ্রসন্ন হয় তার। নাম ওঠে বঙ্গবন্ধু কাপের প্লেয়ার্স ড্রাফটে।

ড্রাফট থেকে শফিকুলকে দলে টানে ঢাকা। দলটির হয়ে প্রথম ম্যাচে সুযোগ না পেলেও পরের চার ম্যাচে নিয়মিত তিনি। শফিকুলের বোলিংয়ে মুগ্ধ হয়ে ঢাকার পেসার রুবেল হোসেন বলেছিলেন, ‘ওর সাথে আমি নেটে বোলিং করেছি। তখনই দেখেছি ভালো বোলিং করে। পেস আছে, ভেরিয়েশন আছে। ভালো ছেলে এবং ভালো বোলার। আমার কাছে মনে হয় ওর ভবিষ্যৎ ভালো।’

বঙ্গবন্ধু কাপে চার ম্যাচে ৮ উইকেট নিয়েছেন শফিকুল। ভালো বোলিংয়ের পাশাপাশি ফিল্ডিংয়েও নিজের মাহাত্ম্য জাহির করে চলেছেন। রোববার চট্টগ্রামের বিপক্ষে ম্যাচে ইনফর্ম ব্যাটসম্যান লিটন দাসকে ফিরিয়েছেন অসাধারণ এক ক্যাচ নিয়ে। যা টুর্নামেন্ট সেরা ক্যাচগুলোর একটি। সেই ম্যাচটি জিতেছে ঢাকা। অপরাজিত ৭৩ রান করে ম্যাচ সেরার পুরস্কার হাতে তুলেছেন মুশফিক।

ম্যাচ শেষে শফিকুলকে প্রশংসা বন্যায় ভাসিয়ে মুশফিক বলেন, ‘আপনি যদি আমাকে জিজ্ঞাসা করেন এই টুর্নামেন্টের সবচেয়ে সুন্দর জিনিস কি, আমি তাহলে অবশ্যই বলব শফিকুল। যেভাবে সে বল করেছে, বিশেষ শেষ তিন ম্যাচে সে অসাধারণ ছিল। তাকে দমিয়ে রাখা অতটা সহজ নয়।’

আমি মনে করি সে যেভাবে ক্রিজে এবং ক্রিজের বাইরে তার কাজটা করেছে এটা দুর্দান্ত। শুধু তার বোলিংই নয়, সে ফিল্ডিংয়েও ভালো করছে। আমি মনে করি এই ধরণের ক্রিকেটাররা ভবিষ্যতে অনেকদূর এগিয়ে যাবে।’– সাথে যোগ করেন তিনি।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: