latest

দায়িত্ব নেওয়ার সাড়ে তিন মাসের মধ্যে ১০০ মিলিয়ন টিকার প্রতিশ্রুতি বাইডেনের

‘দায়িত্ব নেওয়ার ১০০ দিনের মধ্যে ১০০ মিলিয়ন করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন দেওয়ার লক্ষ্য পূরণ করা হবে’

যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ক্ষমতা গ্রহণের প্রায় সাড়ে তিন মাসের মধ্যে ১০০ মিলিয়ন করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, “দায়িত্ব নেওয়ার ১০০ দিনের মধ্যে ১০০ মিলিয়ন করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন দেয়ার লক্ষ্য পূরণ করা হবে।”

সংক্রমণ বৃদ্ধি এবং একইসাথে ক্রমবর্ধমান মৃত্যুর মিছিলের মধ্য দিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিনিয়ত যেন আরও ভয়াবহ হয়ে উঠছে করোনাভাইরাস।

প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত এক কোটি ৫১ লাখ ৬১ হাজার ৮০৭ জন আক্রান্ত এবং ২ লাখ ৮৬ হাজার ১৮৯ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। বুধবার জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয় (জেএইচইউ) থেকে প্রকাশিত সর্বশেষ তথ্যে এ পরিসংখ্যান উঠে এসেছে।

কিছু কৌশলের কথা উল্লেখ করে বাইডেন বলেন, তিনি ক্ষমতা গ্রহণের পর প্রথম মাসগুলোতে হয়তো মহামারি শেষ হয়ে যাবে না, তবে এই ভাইরাস সংক্রমণের গতিপথ পরিবর্তন করে দেয়ার চেষ্টা করবেন তিনি।

মাস্ক ব্যবহারের উপর জোর দিয়ে বাইডেন বলেন, ২০ জানুয়ারি শপথ নেওয়ার পর পুরো আমেরিকা যেন ‘১০০ দিনের জন্য মাস্কে মোড়া থাকবে।’ এ সময় স্বাস্থ্য বিষয়ক দলের সাথে পরিচয় করিয়ে দেন তিনি।

মঙ্গলবারের একটি রিপোর্টের পর ফাইজার-বায়োএনটেকের ভ্যাকসিন অনুমোদন এবং আমেরিকানদের জন্য সরবরাহের পথ সূচিত হয়েছে।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এর মধ্যে হোয়াইট হাউসে কোভিড ভ্যাকসিনেশন কর্মসূচী, যেটি অপারেশন ওয়ার্প স্পিড নামে পরিচিত সেটির সদস্যদের সাথে বৈঠক করেছেন এবং ভ্যাকসিনকে অনুমোদন দেওয়ার উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন।

বাইডেন ডেলাওয়ারে একটি সংবাদ সম্মেলনে অংশ নেন যেখানে তিনি ক্যালিফোর্নিয়ার অ্যাটর্নি জেনারেল জেভিয়ার বেসেরাকে তার স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে এবং রোশেল ওয়ালেনস্কিকে জাতীয় রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রের প্রধান হিসেবে মনোনয়ন দেন।

বাইডেন বলেন, “আমার প্রথম ১০০ দিনে কোভিড-১৯ ভাইরাস শেষ হয়ে যাবে না। সেটা আমি ওয়াদা করতে পারবো না। আমরা হঠাৎ করেই এই বিপদে জড়াইনি আর তাই হঠাৎ করেই উঠেও আসা যাবে না। প্রথম ১০০ দিনে আমরা রোগের গতিপথ বদলে দিতে পারি এবং আরো ভাল কিছুর জন্য আমেরিকার জীবন পাল্টে দিতে পারি।”

তিনি বলেন, শিশুদের স্কুলে ফিরিয়ে নেয়াটাও অগ্রাধিকারের মধ্যে থাকবে। তবে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সর্ববৃহৎ এই ভ্যাকসিন কর্মসূচি কেমন হতে পারে সে বিষয়ে বিস্তারিত তেমন কিছু জানাননি বাইডেন।

সম্পূর্ণ সংবাদ টি পড়ুন

সূত্রঃ ঢাকা ট্রিবিউন

Source Link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *