পূর্বাচলে মার্চে বাণিজ্য মেলা

শেরেবাংলা নগরের চিরচেনা বিশাল চত্বরে আর হচ্ছে না ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা (ডিআইটিএফ)। আগামী বছরই সেটিকে সরিয়ে ২৫ কিলোমিটার দূরে পূর্বাচলে নবনির্মিত বাংলাদেশ-চীন ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারে আয়োজন করার পরিকল্পনা চূড়ান্ত করেছে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি)। প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের সবুজ সংকেত পেলেই ১৭ মার্চ শুরু হবে ডিআইটিএফ।

বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারের নির্মাণকাজ।ফাইল ছবি। প্রথম আলো

ঢাকার শেরেবাংলা নগরে প্রতিবছর ১ জানুয়ারি মাসব্যাপী বাণিজ্য মেলা শুরু হয়। তবে করোনাভাইরাসের কারণে আগামী বছর নিয়মটির ব্যত্যয় হচ্ছে। শেষ পর্যন্ত মেলা হবে কি না, সেটি নিয়ে অনেক জল্পনা-কল্পনা চলেছে গত কয়েক মাস। অবশ্য গতকাল রোববার ইপিবির বোর্ড সভায় পূর্বাচলে ২৬তম ডিআইটিএফ করার বিষয়ে প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে। ৩০ থেকে ৬০ দিন পর্যন্ত মেলা হতে পারে। অবশ্য পবিত্র রমজান মাসের কারণে মেলার সময়সীমা কমও হতে পারে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ইপিবির একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা প্রথম আলোকে বলেন, পূর্বাচলে ১৭ মার্চ থেকে বাণিজ্য মেলা আয়োজনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। ওই দিন ডিআইটিএফের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী কেন্দ্রটিরও উদ্বোধন হবে। তিনি আরও বলেন, মেলা আয়োজনের প্রস্তুত শুরু হয়ে গেছে। আগামী সপ্তাহে স্টিয়ারিং কমিটি ও বিভিন্ন সাবকমিটি গঠন করা হবে।

ঢাকার শেরে-বাংলা নগরে প্রতিবছর ১ জানুয়ারি মাসব্যাপী বাণিজ্য মেলা শুরু হয়। তবে করোনাভাইরাসের কারণে আগামী বছর নিয়মটির ব্যত্যয় হচ্ছে। শেষ পর্যন্ত মেলা হবে কি না, সেটি নিয়ে অনেক জল্পনা–কল্পনা চলেছে গত কয়েক মাস। অবশ্য গতকাল রোববার ইপিবির বোর্ড সভায় পূর্বাচলে ২৬তম ডিআইটিএফ করার বিষয়ে প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে।

ইপিবির কর্মকর্তারা জানান, পূর্বাচলে ২০ একর জমির ওপর বাংলাদেশ-চীন ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারের নির্মাণকাজ শেষ। চলতি মাসেই ইপিবি এই আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী কেন্দ্র বুঝে নেবে। সেখানে ৯ বর্গফুট আয়তনের ৮০০টি স্টল রয়েছে। ফলে শেরেবাংলা নগরের মতো বিপুলসংখ্যক প্রতিষ্ঠান মেলায় অংশ নেওয়ার সুযোগ পাবে না।

সব মিলিয়ে মেলায় অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৫০ শতাংশ কমতে পারে। এমনকি পূর্বাচলে কয়েক তলাবিশিষ্ট দৃষ্টিনন্দন প্যাভিলিয়নও দেখা যাবে না। সে ক্ষেত্রে প্রচলিত ডিআইটিএফের জৌলুশ কিছুটা কমবে।

কর্মকর্তারা জানান, বারবারের মতো পূর্বাচলে আয়োজিত ডিআইটিএফেও টিকিট কেটে দর্শনার্থীদের মেলা প্রাঙ্গণে প্রবেশ করতে হবে। তবে ভিড় এড়াতে অনলাইনে টিকেট কাটার সুবিধা থাকবে। তবে করোনার কারণে নির্দিষ্টসংখ্যক দর্শনার্থীকে মেলায় প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে কি না, সেটি চূড়ান্ত হয়নি।

শেরে-বাংলা নগরের বাণিজ্য মেলা
শেরে-বাংলা নগরের বাণিজ্য মেলা ফাইল ছবি। প্রথম আলো

জানতে চাইলে বাণিজ্যসচিব মো. জাফর উদ্দীন প্রথম আলোকে বলেন, ‘মুজিব বর্ষ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিনে, অর্থাৎ ১৭ মার্চ আমরা পূর্বাচলের নতুন আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী কেন্দ্রে ডিআইটিএফ উদ্বোধন করতে চাই। ইতিমধ্যে প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ–সংক্রান্ত একটি সারসংক্ষেপ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হবে। অনুমতি পেলে আয়োজনটির বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে।

জানা যায়, স্থায়ীভাবে আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী কেন্দ্র করার জন্য ২০০৯ সালে প্রাথমিকভাবে তেজগাঁও পুরোনো বিমানবন্দরের ৩৯ একর খালি জায়গা নির্ধারণ করা হয়। পরে সেখানে জায়গা না পাওয়ায় প্রকল্পটি পূর্বাচল উপশহরে সরিয়ে আনা হয়। ২০ একর জমির ওপর ২০১৭ সালের অক্টোবরে প্রদর্শনী কেন্দ্রের নির্মাণকাজ শুরু হয়। প্রকল্পটি বাস্তবায়নে ৬২৫ কোটি ৭০ লাখ টাকা অনুদান হিসেবে দিচ্ছে চীন সরকার। জমি বাবদ সরকার দিয়েছে ১৭০ কোটি ১৩ লাখ টাকা। প্রদর্শনী কেন্দ্রের নির্মাণকাজ করেছে চীনা কোম্পানি।

রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোড থেকে পূর্বাচলের এই প্রদর্শনী কেন্দ্রটির দূরত্ব প্রায় ১৫ কিলোমিটার। প্রদর্শনী কেন্দ্রে দৃষ্টিনন্দন ঢেউখেলানো ছাদের নিচে ২ লাখ ৬৯ হাজার বর্গফুটের দুটি পৃথক প্রদর্শনী হলে আছে ৮০০ স্টলের ব্যবস্থা। সম্পূর্ণ শীতাতপনিয়ন্ত্রিত প্রদর্শনীস্থলে সম্মেলনকক্ষ, খাবারের জন্য বিশাল কক্ষ ও বাচ্চাদের খেলার জায়গা রয়েছে।

সম্পূর্ণ সংবাদ টি পড়ুন

সূত্র: প্রথম আলো

Source Link

1 Comment

  1. vreyro linomit
    January 13, 2021 - 9:11 pm

    I don’t even know how I finished up here, however I assumed this put up was great. I do not recognize who you might be but definitely you are going to a famous blogger should you are not already 😉 Cheers!

    Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: