‘মানসিক অত্যাচারে’ ক্রিকেট ছেড়েছেন, দাবি আমিরের


‘মানসিক অত্যাচারে’ ক্রিকেট ছেড়েছেন, দাবি আমিরের

মাত্র ২৮ বছর বয়সে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণ করেছেন পাকিস্তানের তারকা পেসার মোহাম্মদ আমির। আমির জানিয়েছেন, পাকিস্তানের বর্তমান টিম ম্যানেজমেন্টের কারণে মানসিকভাবে অত্যাচারিত হচ্ছিলেন তিনি। এ কারণেই ক্রিকেট ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

তিন ফরম্যাটে খেলে এখনো 'পস্তান' আমির (2)

যেকোনো ক্রিকেটারের স্বপ্ন থাকে দেশকে প্রতিনিধিত্ব করা। আমিরের মত ক্রিকেটার জাতীয় দলের দরজা নিজের দিক থেকেই বন্ধ করে দেওয়ায় অবাক হচ্ছিলেন অনেকেই। তবে পাকিস্তানের একটি গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে আমির স্পষ্ট করেছেন, অভিমান থেকেই তার এমন সিদ্ধান্ত।

Also Read – অধিনায়ক মিঠুনের ‘মাথা’র প্রশংসায় সালাহউদ্দিন

আমিরের অবসরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)।

আমিরের ভাষ্য, ‘আমি ক্রিকেট ছেড়ে দিচ্ছি কারণ আমি মানসিকভাবে অত্যাচারের শিকার। আমি এই অত্যাচার আর সহ্য করতে পারছি না। ২০১০ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত একবার অত্যাচার সহ্য করেছি, তখন নিষেধাজ্ঞার কারণে ক্রিকেটের বাইরে থেকেছি। শাস্তি পেয়েছি, সব করেছি। কিন্তু আমার মনে হচ্ছে এখনো ভোগান্তি পোহাচ্ছি, পিসিবি সবসময় বলছে তারা আমার পেছনে এত এত টাকা ঢেলেছে… আমি এই ম্যানেজমেন্টের অধীনে খেলতে পারব না।’

গত বছর টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণ করেন আমির। এজন্য অবশ্য রোষানলে পড়তে হয় তাকে। ‘শাস্তি’ হিসেবে বোর্ড তাকে কেন্দ্রীয় চুক্তিতেও রাখেনি। সম্প্রতি সীমিত ওভারের ক্রিকেটের দল থেকেও বাদ পড়লে আমির হতাশায় মুষড়ে পড়েন।

২০০৯ সালে মাত্র ১৭ বছর বয়সে পাকিস্তানের হয়ে অভিষেক হয় আমিরের। কিন্তু সেই বছরই কুখ্যাত লর্ডস টেস্টে ফিক্সিং করে নিষেধাজ্ঞা পেলে বড় সময়ের জন্য মাঠের বাইরে ছিটকে পড়েন। তবে নিষেধাজ্ঞা শেষ করে আবারো দুর্দান্ত ফর্ম নিয়ে ক্রিকেটে ফেরেন তিনি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফের কুড়িয়ে নেন সুনাম। কিন্তু পাকিস্তান জাতীয় দলে নিজের জায়গা পাকা করতে পারেননি। বিগত বছরগুলোতে সময় যত গড়িয়েছে পাকিস্তান জাতীয় দলের ম্যানেজমেন্টের সাথে কেবল খারাপই হয়েছে আমিরের সম্পর্ক।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

 



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: