আজ কক্সবাজার-সেন্টমার্টিন রুটে নামছে ক্রুজ শিপ ‘এমভি বে-ওয়ান’


দেশের পর্যটন শিল্পে নতুন যুগের সূচনা হতে যাচ্ছে। আজ কক্সবাজার-সেন্টমার্টিন রুটে নামছে ‘সি ট্যুরিজমের’ অন্যতম প্রধান আকর্ষণ ক্রুজ শিপ বা বিলাসবহুল জাহাজ ‘এমভি বে-ওয়ান’।

এর আগে গত বছর কক্সবাজার-সেন্টমার্টিন রুটে কর্ণফুলী এক্সপ্রেস নামে আরেকটি ক্রুজ শিপ চালু করা হয়। কিন্তু সেটির ধারণ ক্ষমতা মাত্র ৫০০ জনের। সেখানে ‘বে ওয়ান’-এর ধারণ ক্ষমতা ২ হাজার জনের।

জানা গেছে, আজ রোববার চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় আধুনিক সব সুযোগ সুবিধা সমৃদ্ধ এই প্রমোদতরীর উদ্বোধন শেষে কক্সবাজার-সেন্টমার্টিন রুটে যাতায়াত শুরু হবে। এর ফলে মাত্র ৩ ঘণ্টায় কক্সবাজার থেকে সেন্টমার্টিন পৌঁছানো সম্ভব হবে।

জানা গেছে, আধুনিক এই শিপে রয়েছে বিলাসবহুল রেস্টুরেন্ট, প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুটসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা। এমনকি রাত্রীযাপনের সু-ব্যবস্থাও থাকছে। জাহাজটি আমদানি করা হয়েছে দেশের খ্যাতনামা জাহাজ নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান কর্ণফুলী শিপ বিল্ডার্সের অর্থায়নে।

তারকামানের এই জাহাজ ‘বে ওয়ান’ইন্টারন্যাশনাল মেরিটাইম অরগানাইজেশনের (আইএমও) রেজিস্ট্রেশনপ্রাপ্ত। সর্বোচ্চ ২৪ নটিক্যাল মাইল গতিতে চলতে পারে ১২১ মিটার দৈর্ঘ্য ও ৫ দশমিক ৩ মিটার ড্রাফটের জাহাজটি। বাংলাদেশে এখন এটিই সর্ববৃহৎ ক্রুজ শিপ। শুধু অভ্যন্তরীণ রুটে নয়, আইএমওর রেজিস্ট্রেশনপ্রাপ্ত হওয়ায় আন্তর্জাতিক রুটেও জাহাজটি পরিচালনার সুযোগ রয়েছে।

প্রতিদিন সকাল ৮টায় কক্সবাজার শহরের নুনিয়ারছড়ার বিআইডব্লিউটিএ ঘাট থেকে যাত্রী নিয়ে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশে রওনা দেবে জাহাজটি। আর সেন্টমার্টিন পৌঁছাবে বেলা ১১টায়। আবার সেন্টমার্টিন থেকে বিকেল ৪টায় ছেড়ে সন্ধ্যা ৭টায় কক্সবাজার পৌঁছাবে।

জাহাজের ইকোনমি সিটের ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ২৫০০ টাকা। এর আসন সংখ্যা ৩০০ প্লাস। বিজনেস ক্লাসে ভাড়া ৩০০০ টাকা। আসন সংখ্যা ২০০ প্লাস। ওপেন ডেকে ভাড়া ৪০০০ টাকা। এতে আসন সংখ্যা ১০০ এর বেশি। ভিআইপি কেবিনের ২৫ হাজার টাকা। যার আসন সংখ্যা মাত্র ৪টি। এ ছাড়া ভিভিআইপি কেবিনে আসন রয়েছে ২৮টি। এর ভাড়া ৩০ হাজার টাকা।





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: