‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ উদযাপনে মাঠে থাকবে আ.লীগ


সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিজয়ের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তির দিনে বিভিন্ন কর্মসূচি পালনের মধ্য দিয়ে মাঠে থাকবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। একইসঙ্গে সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতাকর্মীরাও বিভিন্ন কর্মসূচিতে দিবসটি উদযাপন করবে।

মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) দলের দফতর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব কর্মসূচির কথা জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) দেশব্যাপী ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ উদযাপন করবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। এছাড়া বলা হয়, ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের জনগণ মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির পক্ষে ব্যালটের মাধ্যমে আওয়ামী লীগের পক্ষে নৌকা প্রতীকে গণরায় প্রদান করে। স্বাধীনতাবিরোধী-যুদ্ধাপরাধী, ১৫ আগস্ট, জেলহত্যা ও ২১ আগস্টের খুনি এবং সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে সরাসরি প্রত্যাখ্যান করে দেশের জনগণ।

আরও বলা হয়, বিএনপি তাদের চিরাচরিত ষড়যন্ত্রের রাজনীতির ধারাবাহিকতায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও গণতান্ত্রিক অগ্রযাত্রাকে ব্যাহত করতে এবং জনগণের মধ্যে নির্বাচন নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা ও নির্বাচন কেন্দ্রিক উৎসব-আমেজে স্থবিরতা সৃষ্টি করতে অপতৎরপতা চালায়। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে এবং পরে গণতান্ত্রিক ধারাবাহিকতা বিনষ্টে সারাদেশে বিএনপি-জামাত অশুভ জোট আগুন সন্ত্রাস চালায় ও নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করে। বিএনপি-জামাতের আগুন সন্ত্রাসে শত শত সাধারণ মানুষ নিহত হয়। এখনো অসংখ্য মানুষ আগুন সন্ত্রাসে দগ্ধ হয়ে দুর্বিষহ যন্ত্রণা ভোগ করছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এ দেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠা ও সুরক্ষা এবং মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনাভিত্তিক গণতান্ত্রিক মূল্যবোধে উদ্ভাসিত সমাজ বিনির্মাণ করতে বদ্ধপরিকর। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে বাংলাদেশ যখন ধারাবাহিক অগ্রগতির মধ্য দিয়ে কাঙ্ক্ষিত অভিষ্ঠে এগিয়ে চলেছে, তখনই একাত্তরের পরাজিত অপশক্তি বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা ও গণতান্ত্রিক অভিযাত্রাকে ব্যাহত করার নানামুখী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে।

৩০ ডিসেম্বর ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ জেলা, মহানগর, উপজেলা ও থানা পর্যায়ে স্বাস্থ্য্য সুরক্ষা বিধি মেনে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করবে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বুধবার সকাল ১১টা রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, বিশেষ অতিথি হিসেবে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম ও সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম উপস্থিত থাকবেন।

বিকেল ৩টায় বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী, আব্দুর রহমান, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল-আলম হানিফ, ডা. দীপু মণি এমপি ও ড. হাছান মাহমুদ উপস্থিত থাকবেন।

এসব কর্মসূচিতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা অংশ নেবেন। এছাড়া আওয়ামী লীগের সকল জেলা, মহানগর, উপজেলা ও থানা শাখায় অনুরূপ কর্মসূচি পালিত হবে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এক বিবৃতিতে ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ উপলক্ষে কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ ঘোষিত কর্মসূচি স্বাস্থ্য সুরক্ষা বিধি মেনে যথাযথভাবে পালনের জন্য দেশের সকল জেলা, মহানগর, উপজেলা ও থানা আওয়ামী লীগসহ সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। একইসাথে দেশের সর্বস্তরের জনগণকে গণতন্ত্রের বিজয়ের এই ঐতিহাসিক দিনটি যথাযথ মর্যাদার সাথে উদযাপনের জন্য বিনীত অনুরোধ জানিয়েছেন।

আওয়ামী যুবলীগ সকালে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ প্রাঙ্গনে ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ উপলক্ষে সমাবেশ ও আনন্দ মিছিল করবে। এতে সভাপতিত্ব করবেন যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ এবং সঞ্চালনা করবেন-সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল।

সারাবাংলা/এনআর/এমআই





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *