বাংলাদেশকেই ফেভারিট মানছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ


বাংলাদেশকেই ফেভারিট মানছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ

টাইগারদের বিপক্ষে তিনটি ওয়ানডে ও দুটি টেস্ট খেলতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ জাতীয় দল এখন বাংলাদেশে। বাংলাদেশের মাটিতে ক্যারিবীয়দের সাম্প্রতিক রেকর্ড স্বস্তিকর নয়। তার উপর এবারের সফরের ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে নেই অনেক অভিজ্ঞ ক্রিকেটার। এমন পরিস্থিতিতে বাংলাদেশকেই ফেভারিট মানছে সফরকারীরা।

বাংলাদেশকেই ফেভারিট মানছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ
অভিজ্ঞতা বিচারে বাংলাদেশের চেয়ে পিছিয়ে ক্যারিবীয়রা। ফাইল ছবি

ওয়েস্ট ইন্ডিজ জাতীয় দলের কোচ ফিল সিমন্স মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) সংবাদ সম্মেলনে জানান, দ্বিধাহীনভাবেই এই সিরিজে বাংলাদেশ ফেভারিট। তিনি বলেন, বাংলাদেশ স্পষ্ট ফেভারিট, কারণ তারা ঘরের মাঠে ভালো খেলে। আমরা এটির সাথে দ্বিমত পোষণ করতে পারি না।’

তবে ক্যারিবীয় তরুণরা যে ছেড়ে কথা বলবেন না, সেই বিষয়ও জানিয়ে রেখেছেন কোচ। অভিজ্ঞতায় পিছিয়ে থাকলেও দলটির জয়ের ক্ষুধায় কমতি নেই। সিমন্সের ভাষায়, ‘অভিজ্ঞতা গুরুত্বপূর্ণ, কিন্তু কিছু কিছু সময় উৎসাহ এবং জয়ের ক্ষুধা অভিজ্ঞতাকেও পরাস্ত করে।’

Also Read – ব্রিসবেনে টয়লেটও পরিস্কার করতে হচ্ছে ভারতীয় ক্রিকেটারদের

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ নিয়ে না ভেবে এই সিরিজ নিয়েই ভাবছে সিমন্সের দল। আর যথারীতি সিরিজ জয়েই চোখ ওয়েস্ট ইন্ডিজের। বিডিক্রিকটাইম এর প্রশ্নের জবাবে সিমন্স জানান, ভালো প্রস্তুতি নিয়ে খেললে টেস্টেও জয়ের সুযোগ থাকবে তার দলের সামনে।

‘যেকোনো সিরিজেই প্রথম এবং প্রধান উদ্দেশ্য থাকে সিরিজ জয়। ঘরের বাইরে জেতা সবসময় কঠিন। পুরো বিশ্বের দিকেই তাকান, ঘরের মাঠে প্রতিটা দলই ভালো খেলে। এটা অনেক কঠিন সিরিজ হতে যাচ্ছে। তবে আমাদের প্রথম কাজই সিরিজ জেতা। দ্বিতীয়ত খেলোয়াড়দের খেলার এবং প্রস্তুত হওয়ার সুযোগ দিতে হবে। ভালো প্রস্তুতি নিলে ঢাকা ও চট্টগ্রামে ভালো করতে পারব। ভালো প্রস্তুতি নিলে আমরা টেস্ট জেতার সুযোগ পাব।’– বলেন সিমন্স।

বল বাই বল লাইভ স্কোর পেতে আর নয় বিদেশি অ্যাপ। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাম্প্রতিক খবর এবং বল বাই বল লাইভ স্কোর আপনার মুঠোফোনে পেতে এখনি প্লে-স্টোর থেকে BDCricTime সার্চ করে ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান ক্রিকেট অ্যাপটি। অথবা ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে। ভালো লাগলে অবশ্যই রেটিং দিয়ে উৎসাহী করুন।

 



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *