স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে প্রবাসে আঞ্চলিক কমিটি বিএনপির


স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে দেশের বাইরেও আঞ্চলিক কমিটি গঠন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

তিনি বলেন, বহির্বিশ্বে আমাদের জাতীয়তাবাদী শক্তির যারা প্রতিনিধি রয়েছেন, আমাদের দলের যেসব শাখা রয়েছে, সবাইকে নিয়ে আমরা আঞ্চলিক কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এরই মধ্যে মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ ও যুক্তরাজ্যে আঞ্চলিক কমিটি গঠন করা হয়েছে। অন্যান্য এলাকা থেকেও আঞ্চলিক কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া চলছে।

শনিবার (১৬ জানুয়ারি) সকালে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে সম্মাননা বিষয়ক উপকমিটির এক বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে ১৩৬ সদস্যের যে জাতীয় কমিটি বিএনপি গঠন করেছে, তার আহ্বায়ক ড. মোশাররফ।

গুলশানে অনুষ্ঠিত সম্মাননা উপকমিটির বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, বিএনপি স্বাধীনতার ঘোষক শহিদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের প্রতিষ্ঠা করা দল। এই দল মুক্তিযোদ্ধাদের দল। সংখ্যাগরিষ্ঠ মুক্তিযোদ্ধারা এই দলে রয়েছেন। এজন্য আমাদের দল অত্যন্ত ভালোভাবে সুবর্ণজয়ন্তী পালন করতে চায়।

তিনি বলেন, আমাদের সবার মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে আবেগ রয়েছে। এই মুক্তিযুদ্ধে যারা জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করেছেন, যারা প্রাণ দিয়েছেন, আমরা যে স্বাধীনতা চেয়েছিলাম— সেই আকাঙ্ক্ষা আমাদের পূরণ হয়েছে কি না, এটা অবশ্যই ৫০ বছরে আমাদের মূল্যায়ন করা প্রয়োজন। যারা আমরা যুদ্ধ করেছি, তাদেরই এই দায়িত্বটা বেশি।

মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস তুলে ধরার আহ্বান জানিয়ে ড. মোশাররফ বলেন, মুক্তিযুদ্ধের পর ৫০ বছর পার হয়েছে। আমরা দেখেছি মুক্তিযুদ্ধকে নিয়ে, মুক্তিযুদ্ধের আকাঙ্ক্ষাকে নিয়ে বিতর্ক করার চেষ্টা হয়েছে। এই ৫০ বছরের আমাদের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে বিকৃত করার অনেক চেষ্টা চলছে। তাই আমরা যুদ্ধ করেছি, যুদ্ধে সহযোগিতা করেছি, এখনো বেঁচে আছি, আমাদেরই দায়িত্ব নতুন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস তুলে ধরা।

এসময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ড. খন্দকার মোশাররফ বলেন, জাতীয় নির্বাচনের মতোই দ্বিতীয় ধাপে ৬০টি পৌরসভায় চলমান নির্বাচনেও ভোটকেন্দ্র ক্ষমতাসীন দল দখল করে রেখেছে।

তিনি বলেন, আমরা যতটুকু খবর পেয়েছি, আজকের পৌরসভার নির্বাচনেও ক্ষমতাসীনরা সকালে থেকেই আমাদের এজেন্টদের সেন্টারে যেতে দেয়নি, অনেক জায়গায় বের করে দিয়েছে। এমনকি বিএনপি সমর্থকদের ভোটকেন্দ্রের কাছেও যেতে দিচ্ছে না তারা।

সম্মাননা কমিটির আহ্বায়ক ব্যারিস্টার অবসরপ্রাপ্ত মেজর শাহজাহান ওমর বীরোত্তমের সভাপতিত্বে সভায় দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব মজিবুর রহমান সারোয়ার, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল জয়নাল আবেদীন, ‍মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, সাধারণ সম্পাদক সাদেক আহমেদ খান, মুক্তিযোদ্ধা দলের উপদেষ্টা শাহ মো. আবু জাফর, বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেসউইং সদস্য শায়রুল কবির খানসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সারাবাংলা/এজেড/টিআর





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *