‘সরকারের আশকারায় বেপরোয়া মাঠপ্রশাসন’


স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: সরকারের আশকারায় মাঠপ্রশাসন বেপরোয়া ওয়ে উঠেছে বলে অভিযোগ করেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম।

মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিৃবতিতে তিনি এ অভিযোগ করেন।

সৈয়দ রেজাউল করীম বলেন, ‘দেশ পরিচালনায় প্রধান কাজটি করে দেশের জনপ্রশাসন। জনগণের করের টাকায় তাদের প্রতিপালন করা হয়। তাদের দক্ষতার ওপরেই দেশের উন্নয়ন-উন্নতি নির্ভর করে। সেজন্য জনপ্রশাসনকে রাজনৈতিক প্রভাবমুক্ত রেখে স্বাধীন ও পেশাদার হিসেবে গড়ে তোলা টেকসই উন্নয়নের প্রধান শর্ত। কিন্তু বাংলাদেশে স্বাধীনতার ৫০তম বছরেও দেশে স্বাধীন, পেশাদার ও দক্ষ কোনো জনপ্রশাসন গড়ে তোলা যায়নি।’

‘বরং সরকারের আশকারায় মাঠপ্রশাসন বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। বাংলাদেশের জনপ্রশাসন সম্পর্কে সাধারণ তথ্য যে, অনিয়ম করলে শাস্তি হয় না, অপরাধের পরে তদবির করে পুরস্কারও জেতেন কেউ কেউ, কোনো ঘটনায় শাস্তি হলেও তা প্রচার হয় না। আনীত অভিযোগ নিস্পত্তির সময়সীমা নেই, স্থানীয় চাপ মোকাবিলায় মানিয়ে চলার নির্দেশনা দেওয়া হয়’— বলেন সৈয়দ রেজাউল করীম।

তিনি বলেন, ‘দেশের জনপ্রশাসন দেশের জন্য বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রতি বছর এডিপির বৃহৎ অংশ অবাস্তবায়িত থাকছে। চলতি অর্থ বছরের প্রথম চার মাসে বাজেট বাস্তবায়নও গত বছরের চেয়ে কমে গেছে। অথচ প্রতিবছরই জনপ্রশাসনের পেছনে ব্যয় বাড়ছে।’

সৈয়দ রেজাউল করীম বলেন, ‘জনপ্রশাসন এভাবে বেপরোয়া ও অপেশাদার হওয়ার প্রধান দায় ক্ষমতাসীনদের। তারাই ক্ষমতার স্বার্থে জনপ্রশাসনকে দলীয় বাহিনীর মতো করে ব্যবহার করেছে। ক্ষমতায় যাওয়ার হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করেছে। ফলে জনপ্রশাসন দেশের কর্মচারী হওয়ার বদলে শাসকে পরিণত হচ্ছে। এর দায় সম্পূর্ণই ক্ষমতাসীনদের। বিশেষত আওয়ামী লীগ সরকারের। তারা নির্বাচনের সময় প্রশাসনকে যাচ্ছেতাই ব্যবহার করে নিজেরাই প্রশাাসন নির্ভর হয়ে পড়েছে।’

তিনি বলেন, ‘জনপ্রশাসনকে অবশ্যই পেশাদার হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। সেজন্য তাদের কোনো সদস্যের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগকে দ্রুততার সঙ্গে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনতে হবে।’

সারাবাংলা/এজেড/এমআই





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *