latest

বেশি দামে ভারত থেকে ভ্যাকসিন কেনা হচ্ছে: ফখরুল


স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: অনেক বেশি দাম দিয়ে ভারতের কাছ থেকে ভ্যাকসিন কেনা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বুধবার (২০ জানুয়ারি) বিকেলে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির মিলনায়তনে সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮৫তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভায় তিনি এ অভিযোগ করেন।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘আজকে স্বাধীনতার ৫০ বছর। এই ৫০ বছরে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের নাম কেউ মুছতে পারেনি, সম্ভব নয়। দেখুন কী যে এক কাল এলো। মানুষকে এখন মুখোশ পরে ঘুরে বেড়াতে হয়। এই করোনার ভ্যাকসিন নিয়েও তারা চুরি করেছে, ডাকাতি করেছে, লুটপাট করেছে। করোনার প্রথমদিকে টেস্ট নিয়ে রিজেন্ট হাসপাতাল, সাবরিনারা এসে লুটপাট করেছে। আজকে ভ্যাকসিন- যেটি নিয়ে মানুষের জীবন রক্ষা হবে, মানুষ বাঁচবে; তা নিয়েও তারা লুটপাট শুরু করেছে। অনেক বেশি দাম দিয়ে ভারতের কাছ থেকে ভ্যাকসিন কিনছে।’

ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘এই ভ্যাকসিন সাধারণ মানুষেরা পাবে কি না তার কোনো প্ল্যান নেই! আগে আসবে ২০ লাখ ভ্যাকসিন। এই ২০ লাখ ভ্যাকসিন কারা পাবে সেটিও জানি না। প্রতিমাসে ৫০ লাখ ডোজ আসবে। সেটি কারা পাবে তাও জানি না। সাধারণ মানুষ কখন পাবে, না পাবে তার কোনো নিশ্চয়তা নেই।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, “১৯৭৪ সালে একটি ভয়াবহ দুর্ভিক্ষ হয়েছিল বাংলাদেশ। ওই সময়ে দেশে চাল-ডাল যে উৎপন্ন হয়নি এমন নয়। বিখ্যাত অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন বলেছিলেন, ‘মানুষের সৃষ্ট কারণে দুর্ভিক্ষ হয়েছে।’ কেন? ওই সময়ে আওয়ামী লীগের লোকেরা চুরি-চামারি করেছে, ডাকাতি করেছে, মানুষের হকটাকে কেড়ে খেয়েছে। সে কারণে দুর্ভিক্ষ হয়েছে।”

আওয়ামী লীগের প্রথম শাসনকালের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘১৯৭২ সালের যে সংবিধান সেটা তারা কেটেছেঁটে প্রথমে জরুরি অবস্থা, তার আগে বিশেষ ক্ষমতা আইন, পরে বাকশাল- একদলীয় ব্যবস্থা। আওয়ামী লীগ সব কথা বলে, অনেক কথা কিন্তু একটা কথা সবসময় এড়িয়ে যায়। সেটি হলো ৭২ থেকে ৭৫ সাল পর্যন্ত কত লোককে তোমরা হত্যা করেছ? ৭২ থেকে ৭৫ সাল পর্যন্ত তোমরা জরুরি অবস্থা কেন ঘোষণা করেছিলে? বিশেষ ক্ষমতা আইন কেন করেছিলে? সমস্ত দল বন্ধ করে দিয়ে একদলীয় শাসন ব্যবস্থা বাকশাল কেন প্রতিষ্ঠা করেছিলে? এই বিষয়ে তারা কোনো কথা বলে না। দেখবেন, তারা কোনোদিন এর উত্তরও দেয় না।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আজকে আমার সমস্ত অধিকার কেড়ে নেবে, আমার ভোটের অধিকার কেড়ে নেবে, আমাকে কথা বলতে দেবে না, আমার সংগঠনের অধিকার কেড়ে নেবে। এমনকি আমি একটা কাজ করে খাব সে অধিকার কেড়ে নেওয়া হচ্ছে। সে অবস্থা থেকে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বাংলাদেশকে মুক্তি দিয়েছিলেন। যেখানে আওয়ামী লীগ ব্যর্থ হয়েছে সেখানে জিয়াউর রহমান সফল হয়েছেন। যেখানে আওয়ামী লীগ ব্যর্থ হয়েছে সেখানে জিয়াউর রহমান একটা স্বপ্ন মানুষকে দেখিয়েছে। জিয়াউর রহমানের সাফল্য হচ্ছে বাংলাদেশের মানুষকে অন্ধকার থেকে আলোতে তুলে নিয়ে এসেছেন। জাতিকে তিনি ঐক্যবদ্ধ করেছিলেন, অনুপ্রাণিত করেছিলেন এবং একটা উন্নত, সমৃদ্ধ বাংলাদেশের স্বপ্ন তিনি দেখেয়েছিলেন। খালেদা জিয়া আজ বন্দী, তার অপরাধ তিনি শহীদ জিয়াউর রহমানের আদর্শ বাস্তবায়নের জন্য সংগ্রাম করেছেন, লড়াই করেছেন।’

বিএনপি নেতা কর্মীদের বিরুদ্ধে ৩৫ লাখ মামলার কথা উল্লেখ করে ফখরুল বলেন, ‘আজকে আমাদের ৩৫ লাখ লোকের বিরুদ্ধে মামলা, ৫০০ এর বেশি নেতাকর্মীকে গুম করে ফেলা হয়েছে। হাজার হাজার নেতাকর্মীকে খুন করা হয়েছে। এই ভয়াবহ অবস্থা থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে। এই অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে হলে আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের যে অনুপ্রেরণা, তার যে আদর্শ, তাকে লক্ষ্য করে নিয়ে অনুপ্রাণিত হয়ে আমাদেরকে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।’

জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল আয়োজিত আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক তাজমেরী এস এ ইসলাম, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সম্পাদক মাহবুব উদ্দিন খোকন, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, বিএনপির ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, বিএনপির স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর শরাফত আলী সপু, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মোহাম্মদ কামরুল আহসান, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক রুহুল কুদ্দুছ কাজল।

স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েলের সঞ্চালনায় ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মনির, সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াছিন আলী, সহ-সভাপতি জাকির হোসেন, সুলতান মো. নাসির, গোলাম সারওয়ার, স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সম্মানিত সদস্য ও স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক সভাপতি শফিউল বারী বাবুর স্ত্রী বিথিকা বিনতে হোসেন প্রমুখ।

সারাবাংলা/কেআইএফ/একে





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *