‘নীতিহীন শিক্ষা চোর-ডাকাত-দুর্নীতিবাজ তৈরি করছে’


স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: নীতিহীন শিক্ষা চোর-ডাকাত-দুর্নীতিবাজ তৈরি করছে বলে মন্তব্য করেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম।

বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আয়োজিত জাতীয় শিক্ষক ফোরামের কেন্দ্রীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম বলেন, ‘নাস্তিক্যবাদী গোষ্ঠী ইসলাম ধ্বংসে সিন্ডিকেটভিত্তিক অপপ্রচার করছে। ইসলামি শিক্ষা ও ইসলামপন্থীদের বিরুদ্ধে অশালীন ভাষা প্রয়োগ করছে।’

‘নীতিহীন শিক্ষা চোর-ডাকাত-দুর্নীতিবাজ তৈরি করছে’

তিনি বলেন, ‘প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থা শিক্ষার্থীদেরকে আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে ব্যর্থ হয়েছে। দেশপ্রেম ও ইসলামি মূল্যবোধসম্পন্ন নাগরিক গড়ে তোলার লক্ষ্যে শিক্ষার সব স্তরে ইসলামি শিক্ষাকে বাধ্যতামূলক করতে হবে। ধর্মহীন শিক্ষার ফলে আদর্শ মানুষের পরিবর্তে চোর-ডাকাত, দুর্নীতিবাজ তৈরি হচ্ছে। এরাই রাষ্ট্রের সম্পদ বিদেশে পাচার করছে। এই পাচারের সঙ্গে মূর্খ, রিকশাচালক কিংবা মাদরাসার কোনো শিক্ষার্থী জড়িত নয়।’

তিনি বলেন, ‘সমাজে এক ধরনের ডাকাত আছে, যারা রাইফেল বা ছুরি ঠেকিয়ে ডাকাতি করে। অন্যদিকে শিক্ষিত ডাকাত যারা, তারা কলম দিয়ে ফাইল ঠেকিয়ে ডাকাতি করে। এরা সবাই ডাকাত। বরং মূর্খ ডাকাতের চেয়েও শিক্ষিত ডাকাত আরও ভয়ঙ্কর। এজন্য ছাত্র-শিক্ষক উভয়কে ইসলামি ও নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে।’

অধ্যাপক মাহবুবুর রহমানকে সভাপতি, মাওলানা এ বি এম জাকারিয়াকে সহসভাপতি এবং অধ্যাপক নাসির উদ্দিন খানকে সেক্রেটারি জেনারেল করে ২০২১-২২ সেশনের জন্য জাতীয় শিক্ষক ফোরামের নতুন কমিটি ঘোষণা করেন মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ইসলামী আন্দোলনের মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য অধ্যাপক আশরাফ আলী আকন, কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা প্রফেসর ডা. আক্কাস আলী সরকার, যুগ্ম মহাসচিব আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম ও ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুল আলম, শিক্ষা ও সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা নেছার উদ্দিন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক ড. গোলাম রব্বানী, ইউনিসেফের গবেষণা সহকারী ও ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির সহযোগী অধ্যাপক মুহাম্মদ হাসান রাইয়ান, অধ্যাপক মুহাম্মদ আব্দুর রকিব।

শিক্ষার সব স্তরে ধর্মীয় শিক্ষা বাধ্যতামূলককরণ, শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণ এবং শিক্ষক সমাজের ন্যায্য দাবি আদায়ের লক্ষকে প্রতিপাদ্য করে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। অধ্যাপক মাহবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে ১৪ দফা প্রস্তাবনা পেশ করা হয়। প্রস্তাবনা পেশ করেন মাওলানা এ বি এম জাকারিয়া। সম্মেলনে জাতীয় শিক্ষক ফোরামের অর্ধশত জেলা প্রতিনিধি বক্তব্য রাখেন। সম্মেলন পরিচালনা করেন প্রভাষক আব্দুস সবুর ও কেন্দ্রীয় সদস্য অধ্যক্ষ মাওলানা বাকীবিল্লাহ।

কুমিল্লা জেলা উত্তর ও মহানগর কমিটি পুনর্গঠন

এর আগে বুধবার (২০ জানুয়ারি) ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ কুমিল্লা জেলা উত্তর ও মহানগর কমিটি পুনর্গঠন করা হয়। শহরের একটি মিলনায়তনে দ্বিবার্ষিক কাউন্সিল অধিবেশনে দলের আমীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম এ কমিটি ঘোষণা করেন। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন দলের কেন্দ্রীয় প্রচার ও দাওয়াহ সম্পাদক মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম ও সহকারী সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা খলিলুর রহমান। জেলা মুজাহিদ কমিটির আলহাজ্ব কামরুল হাসান খোকনসহ জেলা নেতারা বক্তব্য রাখেন।

পরে মাওলানা মোহাম্মদ তৈয়্যবকে সভাপতি, কাজী মাওলানা শামসুল ইসলামকে সহসভাপতি ও মাওলানা নূর হোসাইনকে সেক্রেটারি করে কুমিল্লা জেলা উত্তর এবং এম এম বিলাল হোসাইনকে সভাপতি, মাওলানা রাশেদুল ইসলাম রহমতপুরিকে সহসভাপতি ও মাওলানা এনামুল হক মজুমদারকে সেক্রেটারি করে কুমিল্লা মহানগর কমিটি পুনর্গঠন করা হয়। পরে মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম তাদেরকে শপথবাক্য পাঠ করান।

সারাবাংলা/এজেড/টিআর





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *