অজুহাত না খুঁজে নিউজিল্যান্ডে ভালো খেলতে প্রতিজ্ঞ তাসকিন


অজুহাত না খুঁজে নিউজিল্যান্ডে ভালো খেলতে প্রতিজ্ঞ তাসকিন

জাতীয় দল থেকে বাদ পড়ার পরে অনেক পরিশ্রম করে আবার দলে ফিরেছেন তাসকিন আহমেদ। ঘরের মাঠে একটি সিরিজ খেলার পরে এবার যাচ্ছেন নিউজিল্যান্ডে। বৈরি পরিবেশেও অজুহাত না খুঁজে মানিয়ে নিয়ে ভালো খেলার পক্ষেই কথা বললেন তিনি।

অজুহাত না খুঁজে নিউজিল্যান্ডে ভালো খেলতে প্রতিজ্ঞ তাসকিন

নিউজিল্যান্ডে কিউইদের বিপক্ষে এখনো কোনো ম্যাচই জিততে পারেনি বাংলাদেশ। আবারও সেই দেশেই সফরে যাচ্ছে টাইগাররা। বাংলাদেশের থেকে ওখানকার আবহাওয়াও ভিন্ন। তাই মানিয়ে নিতেও বেশ সময় লাগে। তাই বলে শুধু এটাকে না, প্রতিটি সিরিজকেই চ্যালেঞ্জিং মনে করে ভালো করার তাড়না রাখেন তাসকিন।

Also Read – নিউজিল্যান্ড সফরে বাংলাদেশ দলের স্পন্সর ইভ্যালি’

এই পেসার বলেন, ‘আসলে প্রত্যেকটা সিরিজই আমার জন্য চ্যালেঞ্জিং, ভালো করার একটা তাড়না থাকে। কিন্তু সবকিছুর থেকে আসল জিনিসটা হলো আমার মূল যে ফোকাসটা, আমার লক্ষ্যটা যেটা সেটা পূরণ করতে চাই। একজন পেসার হিসেবে পেসের সঙ্গে, যথাযথভাবে এবং সবকিছু মেনে চলে করে যা ভালো হয় সেটাই করতে চাই।’

তাসকিন এর আগে দুইবার নিউজিল্যাড সফর করেছেন। গতবারের সেই অভিজ্ঞতা মেনেই এবার ভালো খেলার স্বপ্ন বুনছেন তিনি। এই পেসারের ভাষ্যমতে,

‘আসলে নিউজিল্যান্ডে এর আগেও দুইবার খেলেছি আমি । বিশ্বকাপ খেলেছি এবং নিউজিল্যান্ড সিরিজ খেলেছি। সবসময় অনেক চ্যালেঞ্জিং হয় বাইরে থেকে যারাই খেলতে যায় ওদের কন্ডিশনে ওদের সঙ্গে। ওইখানে ভালো করতে হলে আসলে সহজে কোনো কিছু পাওয়া সম্ভব না বোলার, ব্যাটসম্যান দুজনের জন্যই। কারণ ওদের কন্ডিশনে সবসময় ওরাই ফেভারিট থাকে এবং প্রতিপক্ষ দলের জন্য অনেক কঠিন হয়। তবে আমাদের শতভাগ তো দিতেই হবে সঙ্গে বিশেষ কিছুও করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সব সময় মন্থর এবং লো বাউন্সে খেলার অভ্যাস থাকে আমাদের। ওখানে দেখা যাবে অনেক বাউন্স এবং বল দ্রুতগতিতে যেতে পারে, আমাদের জন্য একটু কঠিন হয়। তবে আমি আশাবাদী কারণ আমরা অস্ট্রেলিয়া বা নিউজিল্যান্ডে বিশ্বকাপের ম্যাচগুলো খেলেছিলাম তখন কিন্তু অনেক ভালো উইকেট ছিল ব্যাটিং এবং বোলিংয়ের জন্য। সেরকম যদি স্পোর্টিং উইকেট হয়, আমাদের ভালো করার সুযোগ থাকবে।’

বৈরি পরিবেশ, কখনো জিততে না পারা- এসব কোনোকিছুকেই অজুহাত হিসেবে দাঁড় করাতে চান না তাসকিন। সবকিছুর সাথে মানিয়ে নিয়েই ভালো করার প্রত্যয় ব্যক্ত করলেন তিনি,

‘ওটাই চ্যালেঞ্জিং হয়ে যায় অনেক সময় যে মানিয়ে নেওয়া। প্রচন্ড বাতাস থাকে। যে বাতাসটা নিউজিল্যান্ডে আসলে ফিল্ডিং করার সময় বা বোলিংয়ে রানআপের সময় বা ব্যাটিংয়ে ফোকাস করতে সমস্যা করে। কিন্তু এগুলা আসলে অজুহাত হতে পারে না। এগুলা নিয়েই আমরা চেষ্টা করব মানিয়ে নিয়ে করার ভালো করার।’

প্রসঙ্গত, নিউজিল্যান্ডে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে টাইগাররা দেশ ছাড়বে মঙ্গলবার রাতে।

 



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *