‘সব ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ’


সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বাংলাদেশকে নিয়ে নানা ধরনের ষড়যন্ত্র চললেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সেই ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করেই দেশ এগিয়ে যাবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক।

তিনি বলেন, আমাদের আজকের বাংলাদেশ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এক অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে যে বাংলাদেশ এগিয়ে চলছে, সেই এগিয়ে যাওয়া বাংলাদেশ সব ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন-ভিন্ন করে এগিয়ে যাবে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার দিকে। আজ এই হোক আমাদের আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রত্যয়।

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যুক্ত হয়ে সভাপতির বক্তব্য রাখেন।

আলোচনায় অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে স্বাধীনতা-সংগ্রামের আন্দোলনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভূমিকার কথা তুলে ধরেন।

ভাষা শহিদদের আত্মত্যাগের কথা স্মরণ করে নানক বলেন, এই দিবসটি পালন করতে গিয়ে আমাদের অনেক বাধার মুখে পড়তে হয়েছে। এই আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের স্বীকৃতির জন্য প্রাণপণ চেষ্টা করেছেন আমাদের নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার নেতৃত্বে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। কিন্তু মাঝখানে একটি দুর্ঘটনায় কবলিত হয় দেশ। খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার দেশ শাসন করে।

২০০১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় এসে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটের নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয় উল্লেখ করে নানক বলেন, আজ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হচ্ছে সারাবিশ্বে। আনন্দের খবর হলো— সেই আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস যখন আমরা পালন করছি, পাকিস্তানেও পালিত হয়েছে। এর চেয়ে আমাদের গর্বের আর কিছু হতে পারে না।

সভার শুরুতে শহিদদের প্রতি সম্মান জানিয়ে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। গণভবন প্রান্ত থেকে সভা পরিচালনা করেন দলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ। বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ প্রান্তে সভার শুরুতে বক্তব্য রাখেন দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সভায় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী ও আব্দুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, সংস্কৃতি সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, মহিলা সম্পাদক মেহের আফরোজ চুমকি, শিক্ষা ও মানবসম্পদক বিষয়ক সম্পাদক শামসুন নাহার চাঁপা, ধর্ম সম্পাদক সিরাজুল মোস্তফা, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ উত্তর-দক্ষিণের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান ও আবু আহমেদ মান্নাফী।

বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ প্রান্তে দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের নেতারাসহ ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ উত্তর ও দক্ষিণের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

সারাবাংলা/এনআর/টিআর





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *