“I am devastated” writes Mimi Chakraborty on social media post


সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আজ তিনি বিধ্বস্ত, মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন। কিন্তু তাঁকে লড়াই করতেই হবে। লড়াইয়ে পাশে থাকার আবেদন জানিয়েছেন অনুরাগীদেরও। সম্প্রতি সাংসদ অভিনেত্রী মিমি চক্রব্রতী (Mimi Chakraborty) ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে ব্যক্ত করেছেন নিজের মনের অবস্থা। কী হয়েছে মিমির? সেই প্রশ্ন সকলের। কয়েকদিন আগেই গোয়ায় বেড়াতে যাওয়ার হাসিখুশি নানা ছবি পোস্ট করতে দেখা গিয়েছে মিমিকে। সেখানে বন্ধুদের সঙ্গে চুটিয়ে আনন্দ উপভোগও করেছেন। তারপর ফিরেই এমন বিষাদমাখা পোস্ট দেখে মনভার অনুরাগীদেরও।

আসলে, মিমি যে সারমেয় প্রিয় তা সকলেই জানেন। সেই সারমেয়র মধ্যে একজন চিকু। যাকে মিমি তাঁর বড় ছেলে বলে মনে করেন। সেই চিকু ক্যানসারে আক্রান্ত। এই মুহূর্তে তার চিকিৎসা চলছে। ৮ বছরের চিকুর শরীরে ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ছে সেই মারণ রোগ। চিকিৎসকেরা সব রকম আশা ছেড়ে দিয়েছেন। জানিয়ে দিয়েছেন, চিকুর অস্ত্রোপচার করা সম্ভব নয়।

[আরও পড়ুন: ‘আমি মুখ্যমন্ত্রীর বিরোধী নই’, বিজেপিতে যোগ দিয়েও মমতাপ্রীতি অভিনেত্রী পায়েলের]

এরপরেই সাহায্যের আর্তি জানিয়েছেন অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী (Mimi Chakraborty)। বড় ছেলের চিকিৎসা করাতে তিনি এবার যেতে চান চেন্নাই। অনুরাগীদের কাছে জানতে চেয়েছেন, তাঁদের কোনও পরিচিত চিকিৎসক, হাসপাতাল আছে কিনা যেখানে মিমি চিকুর চিকিৎসা করাতে পারবেন। যদি কেউ জেনে থাকেন তাহলে যেন অবশ্যই মিমিকে ইনবক্স করেন।

তাঁর এই পোস্টের পরেই অনুরাগীরা চিকুর খোঁজখবর নিয়ে দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন। যথাসাধ্যভাবে মিমিকে সাহায্য করার চেষ্টা করেছেন। অনেকে আবার এই পরিস্থিতিতে মিমিকে শক্ত থাকার পরামর্শ দিয়েছেন।

ইন্ডাস্ট্রিতে যাঁরা মিমি চক্রবর্তীকে চেনেন, বা যাঁরা সোশ্যাল পেজে মিমিকে ফলো করেন, তাঁরা জানেন, মা–বাবা বাদে অভিনেত্রীর জীবনের বাকি অংশ জুড়ে রয়েছে তাঁর দুই ছেলে। দুই পোষ্য চিকু এবং ম্যাক্স। চিকু আট বছরের ল্যাব্রাডর আর ম্যাক্স চার বছরের সাইবেরিয়ান হাস্কি। তাঁর বড় ছেলে চিকু অসুস্থ হওয়ায় কেঁদে উঠেছে মায়ের মন। কারণ তাঁর এই দুই ছেলেই তাঁর সুখদুঃখের সঙ্গী। ভালবাসার সঙ্গী। সবরকম শক্তি দিয়ে বড় ছেলে চিকুকে বাঁচানোর আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন মা মিমি।

[আরও পড়ুন: ‘দৃশ্যম-২’র সাফল্যের পর নতুন চমক মালয়ালম পরিচালকের, সুখবর বলিউডেও]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ

নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *