latest

‘মুশতাক হত্যা’য় বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি বাম জোটের


স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কারাবন্দি লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত ও দোষীদের শাস্তির দাবি করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোট। শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৪টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে এই দাবি করা হয়।

সমাবেশ থেকে নিবর্তনমূলক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল এবং এ আইনে কারাবন্দি সবার মুক্তির দাবি জানিয়ে বক্তারা বলেন, ‘লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যু একটি পরিকল্পিত ঠাণ্ডা মাথার হত্যাকাণ্ড। তাকে স্বাধীন মতপ্রকাশের অপরাধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে নয় মাস কারান্তরীণ রাখা হয়। হাইসিকিউরিটি প্রিজনার তকমা দিয়ে স্বজনদের সঙ্গে সাক্ষাৎ পর্যন্ত করতে দেয়া হয়নি। তার জামিন পাওয়ার সাংবিধানিক অধিকার হরণ করা হয়েছে। তাকে হত্যার দায় ক্ষমতাসীন স্বৈরাচারী সরকারকে নিতে হবে।’

সমাবেশে বক্তারা আরও বলেন, ‘সরকারিভাবে একটি তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছে। এই তদন্ত কমিটির প্রতি দেশের মানুষের কোনো আস্থা নেই। তাই বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করে সুষ্ঠু-নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। কুখ্যাত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে এখনও অনেকেই কারাবন্দি আছেন। গতকালও খুলনার পাটকল শ্রমিক আন্দোলনের নেতা রুহুল আমিনকে এ আইনে গ্রেফতার করা হয়েছে।’ বক্তারা অবিলম্বে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কারাবন্দি সকলের মুক্তির দাবি জানান।

সমাবেশ থেকে বক্তারা গ্রেফতারকৃত ৭ ছাত্র নেতাকে মিথ্যা মামলায় কারাগারে পাঠানোর প্রতিবাদ জানান। একইসঙ্গে তাদের অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানানো হয়।

বাম গণতান্ত্রিক জোটের কেন্দ্রীয় পরিচালনা পরিষদের সমন্বয়ক সিপিবি’র প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল্লাহ ক্বাফী রতনের সভাপতিত্বে সমাবেশ বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলম, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য রাজেকুজ্জামান রতন, সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের সভাপতি হামিদুল হক, ইউসিএলবি’র কেন্দ্রীয় নেতা নজরুল ইসলাম, গণসংহতি আন্দোলনের সম্পাকমণ্ডলীর সদস্য বাচ্চু ভুঁইয়া, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা আমেনা আক্তার, বাসদ (মার্কসবাদী)’র নেতা রাশেদ শাহরিয়ার।

সারাবাংলা/এএইচএইচ/এমও





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *