‘রাষ্ট্রযন্ত্রকে জনগণের প্রতিপক্ষ হিসাবে দাঁড় করানো হচ্ছে’


স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: স্বাধীনতার আকাঙ্ক্ষা ও মূল্যবোধ ধ্বংস করে রাষ্ট্রযন্ত্রকে জনগণের প্রতিপক্ষ হিসেবে দাঁড় করানো হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী ও গণফোরাম নেতা অধ্যাপক আবু সাইয়িদ।

তিনি বলেন, আজ স্বাধীনতার নীতি, আকাঙ্ক্ষা ও মূল্যবোধকে ধ্বংস করা হচ্ছে। রাষ্ট্রযন্ত্রকে জনগণের প্রতিপক্ষ হিসাবে দাঁড় করানো হচ্ছে। সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানগুলো ধ্বংসের মুখে। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীকে সামনে রেখে এ পরিস্থিতি থেকে আমাদের ঘুরে দাঁড়াতে হবে।

বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) সন্ধ্যায় গণফোরাম কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন কমিটির সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

অধ্যাপক আবু সাইয়িদ বলেন, মুক্তিযুদ্ধ ছিল জনযুদ্ধ। জনগণের মালিকানা ও অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য লড়াই করে স্বাধীনতা অর্জন করেছিলাম। মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণকারী প্রত্যেকের অবদানকেই স্বীকার করা উচিত। কাউকে খাটো করে ইতিহাস বিকৃত করা উচিত না।

অনুষ্ঠানে গণফোরাম নেতা মোস্তফা মোহসীন মন্টু বলেন, মুক্তিযুদ্ধ হয়েছে সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে। বঙ্গবন্ধু আমাদের চেতনায় ও মননে সবসময় উপস্থিত ছিলেন। বঙ্গবন্ধু বলতেন, আমার দেশ স্বাধীন করতে চাই। ছয় দফা ঘোষণার পর বঙ্গবন্ধুকে গ্রেফতার করা হয়। ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধু মুক্তি সংগ্রাম গঠিত হয়। বঙ্গবন্ধু নিঃশর্তভাবে মুক্তি লাভ করে আইয়ুব খানকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করেন।

তিনি আরও বলেন, ২৫ মার্চ রাতে বঙ্গবন্ধুকে গ্রেফতারের পর অসমাপ্ত মুক্তির সংগ্রামে তাজউদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে দেশবাসী মুক্তিযুদ্ধে অবতীর্ণ হয়। দীর্ঘ ৯ মাস যুদ্ধের মাধ্যমের দেশ স্বাধীন হয়। আমরা কেরাণীগঞ্জ থানা দখল করে পাকিস্তানিদের আত্মসমর্পণ করিয়ে বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করি।

সভায় আরও বক্তব্য দেন সিনিয়র অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, অ্যাডভোকেট জগলুল হায়দার আফ্রিক, মেজর (অব.) আসাদুজ্জামান বীরপ্রতিক, মহিউদ্দিন আব্দুল কাদের, আইয়ুব খান ফারুক, খান সিদ্দিকুর রহমান, মো. হেলাল উদ্দিন, আব্দুল বাতেন খান, লতিফুল বারী হামীম, আতাউর রহমান, রওশন ইয়াজদানী, মো. তাজুল ইসলাম, নাসির হোসেন, জান্নাতুল মাওয়া, মুহাম্মদ উল্লাহ মধু, নিলুফার ইয়াসমিন শাপলা, মো. সানজিদ রহমান শুভ, ইসমাইল সম্রাট, মো. রিয়াদ হোসেনসহ অন্যরা।

সারাবাংলা/এএইচএইচ/টিআর





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *