latest

স্বাধীনতা এবং বঙ্গবন্ধু একে অপরের পরিপূরক: শেখ পরশ


সারাবাংলা ডেস্ক

ঢাকা: যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ বলেছেন, স্বাধীনতা এবং বঙ্গবন্ধু একে অপরের পরিপূরক, একে অপরের প্রতিশ্রুতি এবং অভিন্ন দুটি শব্দ। স্বাধীনতা শব্দটি বা স্বাধীনতার অর্থ থেকে বঙ্গবন্ধুকে কখনও আলাদা করা যায় না।

ঐতিহাসিক ৭ই মার্চ উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের উদ্যোগে যুবলীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে সকালে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে সংগঠনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, বঙ্গবন্ধুর মাধ্যমে ১৯৭১ সালে গুটি গুটি পায়ে উদয় হয়েছিল স্বাধীনতার লাল সূর্য। সেদিন রেসকোর্স ময়দানে বঙ্গবন্ধুর ভাষণকে কেন্দ্র করে পাকিস্তানি শাসক গোষ্ঠী কামান ও আধুনিক অস্ত্রশস্ত্র প্রস্তুত রেখেছিল। কিন্তু বঙ্গবন্ধু সেদিন পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীকে চারটি শর্ত দিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেছিলেন।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৫৬ বছরের ইতিহাসে ২৩ বছর কেটেছে সংগ্রামে আর জেলখানার নিভৃত কুটিরে।আজ তার কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা স্বাধীনতার ৫০ বছর ও মুজিব জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন করছি। জননেত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে কাজ করে যাচ্ছেন। স্বাধীনতার ৫০ বছরে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছে। করোনাকালে দক্ষ নেতৃত্বের কারণে কমনওয়েলথভূক্ত দেশসগুলোর শীর্ষ তিন নারী নেতার মধ্যে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা স্থান করে নিয়েছেন। এটা আমাদের  জন্য অত্যন্ত গর্বের ও আনন্দের।

যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিল বলেন, বঙ্গবন্ধু সারা বাংলাদেশের গ্রাম থেকে গ্রামান্তর, পাড়া-মহল্লার জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম’।

যুবলীগের সভাপতি শেখ পরশের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিলের সঞ্চালনায় এসময় আরও বক্তব্য রাখেন, যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট মামুনুর রশীদ, মো. রফিকুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিশ্বাস মুতিউর রহমান বাদশা, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী মো. মাজহারুল ইসলাম।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, প্রেসিডিয়াম সদস্য মো. হাবিবুর রহমান পবন, মো. নবী নেওয়াজ, মো. এনামুল হক খান, ড. সাজ্জাদ হায়দার লিটন, মো. মোয়াজ্জেম হোসেন, সুভাষ চন্দ্র হাওলাদার, ইঞ্জি. মৃণাল কান্তি জোদ্দার, তাজ উদ্দিন আহমেদ, মো. জসিম মাতুব্বর, মো. আনোয়ার হোসেন।

উপস্থিত ছিলেন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সুব্রত পাল, মো. বদিউল আলম, মো. রফিকুল ইসলাম জোয়ার্দার সৈকত, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী মো. মাজহারুল ইসলাম, ডা. হেলাল উদ্দিন, মো. সাইফুর রহমান সোহাগ, মো. জহির উদ্দিন খসরু, মো. সোহেল পারভেজ, আবু মুনির মো. শহিদুল হক রাসেল, মশিউর রহমান চপল, অ্যাডভোকেট ড. শামীম আল সাইফুল সোহাগ, প্রচার সম্পাদক জয়দেব নন্দী, দফতর সম্পাদক মো. মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক মো. জহুরুল ইসলাম মিল্টন, শিক্ষা প্রশিক্ষণ ও পাঠাগার সম্পাদক ব্যারিস্টার আলী আসিফ খান রাজিব, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক মো. সাদ্দাম হোসেন পাভেল, তথ্য ও যোগাযোগ সম্পাদক মো. শামসুল আলম অনিক, সাংস্কৃতিক সম্পাদক বিপ্লব মোস্তাফিজ, পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মো. হারিছ মিয়া শেখ সাগর, কৃষি ও সমবায় সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. হেমায়েত উদ্দিন মোল্লা, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা খলিলুর রহমান সরদার, মহিলা সম্পাদক অ্যাডভোকেট মুক্তা আক্তার, উপ-দফতর সম্পাদক মো. দেলোয়ার হোসেন শাহজাদা, উপ-গ্রন্থণা ও প্রকাশনা সম্পাদক অ্যাডভোকেট শেখ নবীরুজ্জামান বাবু, উপ-অর্থ সম্পাদক শরীফুল ইসলাম দুর্জয়, উপ-শিক্ষা প্রশিক্ষণ ও পাঠাগার সম্পাদক কাজী খালিদ আল মাহমুদ টুকু, উপ-আইন সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. এনামুল হোসেন সুমন, উপ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মো. সাফেদ আশফাক আকন্দ তুহিন, উপ-বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক মো. রাশেদুল হাসান সুপ্ত, উপ-তথ্য ও যোগাযোগ সম্পাদক এন আই আহমেদ সৈকত, উপ-সাংস্কৃতিক সম্পাদক ফজলে রাব্বি স্মরণ, উপ-স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা সম্পাদক ডা. মাহফুজুর রহমান উজ্জল, উপ-ক্রীড়া সম্পাদক মো. আবদুর রহমান, উপ-শিল্প ও বাণিজ্য সম্পাদক মো. ফিরোজ আল-আমিন, উপ-কৃষি ও সমবায় সম্পাদক মোল্লা রওশন জামির রানা, উপ-মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মো. গোলাম কিবরিয়া শামীম, উপ-ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হরে কৃষ্ণ বৈদ্য, উপ-মহিলা সম্পাদক সৈয়দা সানজিদা শারমীন, সহ-সম্পাদক আবির মাহমুদ ইমরান, তোফাজ্জল হোসেন তোফায়েল, আতাউর রহমান উজ্জল, মো. মামুন আজাদ, মির্জা মো. নাছিউল আলম শুভ্র, গোলাম ফেরদৌস ইব্রাহিম, মো. আবদুর রহমান জীবন, সামিউল আলম, মো. আলমগীর হোসেন শাহ জয়, মো. বাবলুর রহমান বাবলু, এ কে এম মুক্তাদির রহমান শিমুল, হিমেলুর রহমান হিমেল, আবু রায়হান রুবেল, ইঞ্জি. মো. কামরুজ্জামান, মো. মনিরুজ্জামান মিন্টু, মো. মনিরুল ইসলাম আকাশ, অ্যাডভোকেট মো. জয়নাল আবেদীন চৌধুরী রিগ্যান, ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকির হোসেন বাবুল, দক্ষিণ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাইন উদ্দিন রানা, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এইচ এম রেজাউল করিম রেজাসহ কেন্দ্রীয়, মহানগর ও বিভিন্ন ওয়ার্ডের নেতারা।

সারাবাংলা /এসএসএ





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *