ভারত না পারলে বিকল্প ভেন্যুর কথা ভেবে রেখেছে আইসিসি


ভারত না পারলে বিকল্প ভেন্যুর কথা ভেবে রেখেছে আইসিসি

আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আয়োজন ভারত। তবে দেশটিতে যেভাবে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে তাতে টুর্নামেন্টটির আয়োজন নিয়ে সংশয় জেগেছে।

ঝুলে থাকল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ভবিষ্যৎ

ভারত সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন করেছিল ২০১৬ সালে। সেবার সেমিফাইনাল থেকেই বিদায় নিতে হয় দলটিকে। পাঁচ বছর পর টি-টোয়ন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন করতে চলেছে ভারত। তবে এবার সবচেয়ে দুশ্চিন্তার কারণ করোনাভাইরাস! বর্তমানে করোনার দ্বিতীয় ঢেও সামাল দিচ্ছে দেশটি। যে কারণে প্রতিদিনই ১ লক্ষ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন।

Also Read – বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের নতুন স্পন্সর ‘দারাজ’

দেশটিতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকায় সংশয় জেগেছে টি-টোয়ন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন নিয়ে। শেষ পর্যন্ত যদি ভারত আয়োজন করতে না পারে তাহলে বিকল্প দেশ হিসেবে কারা রয়েছে? এমন ভাবনাও উঠে এসেছে। তবে আইসিসির পরিকল্পনা অনুযায়ী বিকল্প ভেন্যূর কথা ভেবে রেখেছে ক্রিকেটের এই সর্বোচ্চ সংস্থা। ভার্চুয়াল এক সভায় আইসিসির অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান নির্বাহী জিওফ অ্যালারডাইস এই ইস্যূতে বলেন,

“হ্যাঁ, টুর্নামেন্টটির আয়োজন নিয়ে আমাদের বিকল্প পরিকল্পনা রয়েছে। যদিও এই মুহূর্তে এখনো সেসব পরিকল্পনা নিয়ে কাজ শুরু করা হয়নি। কারণ আমরা আগের পরিকল্পনা অনুযায়ী ভারতেই টুর্নামেন্টটি আয়োজনের কথা ভাবছি। এটি নিয়ে আমরা বিসিসিআইয়ের সঙ্গে কাজ করছি। তবে আমাদের প্ল্যান ‘বি’ তৈরি করা আছে। সঠিক সময়েই সেটি বাস্তবায়ন হবে।”

টি=টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশ নিতে যাওয়া অধিকাংশ দলগুলোর দেশে করোনা ভ্যাকসিন এসেছে। তবে দলের ক্রিকেটাররা ভ্যাকসিন নিবে কি নিবে সেটি নিয়ে হস্তক্ষেপ করার কোন এখতিয়ার নেই আইসিসির। তবে ক্রিকেটের এই সর্বোচ্চ সংস্থার চাওয়া সম্ভব হলে ভ্যাকসিন নিয়েই টুর্নামেন্টে অংশ নিক দলগুলো।

উল্লেখ্য, জনপ্রিয় টি-টোয়েন্টি লিগ আইপিএল গত বছর সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত হলেও এই বছর ভারতেই আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিসিসিআই। ফলে ‘শূন্য’ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে টুর্নামেন্টের ম্যাচগুলো।



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *