latest

“জাতীয় দল কাউকে খুশি করার জায়গা না”


“জাতীয় দল কাউকে খুশি করার জায়গা না”

কাউকে খুশি করা নয় জাতীয় স্বার্থকেই সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য দিয়ে জাতীয় দল নিয়ে যেকোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে মনে করেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন। মিডিয়ার সমালোচনা কিংবা ক্রিকেট অনুসারীদের  ট্রল থাকলেও জাতীয় দলের স্বার্থেই সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত বলে মনে করেন তিনি।  

জাতীয় দল কাউকে খুশি করার জায়গা না সুজন

বিডিক্রিকটাইমের সঙ্গে আলাপচারিতায় খালেদ মাহমুদ সুজন বলেন,  “আপনি তো এখানে সবাইকে খুশি করতে পারবেন না। ন্যাশনাল টিম খুশি করার জায়গা না- সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে এটা। এখানে জাতীয় স্বার্থ সবার উপরে।”

Also Read – নির্বাচকদের বিশ্বাস ধরে রাখতে চান শহিদুল

শততম টেস্টে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে দল থেকে বাদ দেওয়ার ব্যাপারটি উদাহরণ হিসেবে আনেন তিনি। তিনি মনে করেন রিয়াদের বাদ পড়া নিয়ে যতটা আলোচনা হয়েছে তার জায়গায় খেলা মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের দারুণ পারফরম্যান্স নিয়ে অতোটা হয়নি।

সুজন বলেন, “আপনি দেখেন, শততম টেস্টে যখন মাহমুদউল্লাহকে ড্রপ করা হলো তখন এটা নিয়ে অনেক কথাবার্তা হয়েছে। কিন্তু কেউ লিখেনি যে মাহমুদউল্লাহর জায়গায় যে ছেলেটা খেলল সেই ছেলেটার ৭৫ রানের অনবদ্য ইনিংস দলকে জেতাতে দারুণ কাজে লেগেছে। সেটা নিয়ে কিন্তু আলাপ হয়নি।

“আমার কথা হল মাহমুদউল্লাহকে ড্রপ করা হতেই পারে। মাহমুদউল্লাহকে তো ফেলে দেওয়া হয়নি। ঐ টেস্ট ম্যাচের জন্য কোচের মনে হয়েছে মাহমুদউল্লাহর চেয়ে মোসাদ্দেক বেশি উপযুক্ত।”

আলাপচারিতায় কোচদের নিয়েও কথা বলেছেন বিসিবি পরিচালক। তার কাছে বাংলাদেশের জন্য উপযুক্ত কোচ হলেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। চন্ডিকা হাথুরুসিংহের পর যারা কোচ হিসেবে এসেছেন তাদের মান ভালো হলেও বাংলাদেশের ক্রিকেটের পরিবেশের সাথে খাপ খাইয়ে নেওয়াটা কঠিন বলে মনে করেন সুজন।

তিনি বলেন, “যারা এসেছেন- স্টিভ রোডস বা এখন যারা আছেন তারাও ভালো কোচ। কিন্তু আমার মনে হয় যে পরিবেশের সাথে খাপ খাওয়াতে, বাংলাদেশের ক্রিকেটটা  ধরতে ধরতেই অনেক দেরি হয়ে যায়। যখন পারফরম্যান্স হয় না তখন বাধ্য হয়েই আমাদের বদলাতে হয়।”   



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *