অভাবীদের রেশনিংয়ের আওতায় আনার দাবি বাম ঐক্যের


স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ পরিস্থিতিতে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড সীমিত থাকায় মধ্যবিত্ত, নিম্ন মধ্যবিত্ত, দরিদ্র ও হতদরিদ্রসহ সব ধরনের অভাবী মানুষকে রেশনিংয়ের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে গণতান্ত্রিক বাম ঐক্য। একইসঙ্গে আরও দুইটি দাবি তুলে ধরেছে বামপন্থী কয়েকটি রাজনৈতিক দলের এই জোট।

শুক্রবার (৯ এপ্রিল) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশ থেকে জোটের নেতারা এই দাবি তুলে ধরেন।

তাদের দাবির মধ্যে আর রয়েছে গণপরিবহনে ৬০ শতাংশ বাড়তি ভাড়া আদায়ের সিদ্ধান্ত বাতিল করা ও জ্বালানি তেলে ভর্তুকি দেওয়া; এবং ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) আওতায় বিক্রি করা পণ্যসহ সব ধরনের নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি যেকোনোভাবে বন্ধ করা।

সংক্ষিপ্ত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন গণতান্ত্রিক বাম ঐক্যের সমন্বয়ক ও সোস্যাল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এসডিপি) আহ্বায়ক আবুল কালাম আজাদ। সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক হারুন চৌধুরী, সমাজতান্ত্রিক মজদুর পার্টির সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম, পিডিবির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ খানসহ গণতান্ত্রিক বাম ঐক্যের বিভিন্ন স্তরের নেতারা।

জোটের সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ সমাবেশে বলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণকালে অনেক মানুষ কাজ হারিয়েছেন। তাদের উপার্জনের কোনো ব্যবস্থা নেই, তাদের খাবার জোটে না। কেবল দরিদ্র বা হতদরিদ্র নয়, মধ্যবিত্তদের মধ্যেও যারা কাজ হারিয়েছেন, তারা নিজেদের অভাবের কথা মুখ ফুটে বলতে পর্যন্ত পারছেন না। এসব মানুষের জন্য রেশনিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে সরকারকে। অথচ সরকার সেটা না করে গণপরিবহনের ভাড়া বাড়ানোর সুযোগ দিয়েছে। এ সিদ্ধান্ত গণবিরোধী।

সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক হারুন চৌধুরী বলেন, সরকার অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের জন্য প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করে। কিন্তু সেই প্রণোদনা প্যাকেজ পান শিল্পপতিরা, যাদের অঢেল রয়েছে। অথচ যারা করোনার কারণে পুঁজি হারিয়ে পথে বসেছে, সেই ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীর জন্য প্রণোদনা নেই। সরকার যদি মানুষের কথা ভাবে, তাহলে শিল্পপতি থেকে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী পর্যন্ত সবাইকে প্রণোদনার আওতায় আনতে হবে।

গণতান্ত্রিক বাম ঐক্যের তিন দফা দাবি পূরণ করা না হলে দেশব্যাপী তীব্র গণআন্দেলন গড়ে তোলা হবে বলে সমাবেশে জোটনেতারা হুঁশিয়ারি দেন।

সারাবাংলা/এএইচএইচ/টিআর





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *