সাকিবের প্রত্যাবর্তনের ম্যাচে কলকাতার রোমাঞ্চকর জয়


সাকিবের প্রত্যাবর্তনের ম্যাচে কলকাতার রোমাঞ্চকর জয়

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) চতুর্দশ আসরের তৃতীয় ম্যাচে সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে ১০ রানে হারিয়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। ব্যাট-বল হাতে ম্যাচে পারফর্মের সুযোগ পেয়েছেন বাংলাদেশি অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসাব। 

বড় জয়ে শুরু সাকিবদের আইপিএল
চতুর্দশ আসরে নিজের প্রথম বলেই উইকেটের দেখা পান সাকিব। ছবি : বিসিসিআই

চেন্নাইয়ে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৮৭ রান জড়ো করে কলকাতা। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮০ রান আসে নিতিশ রানার ব্যাট থেকে। ৫৬ বলের মোকাবেলায় তিনি হাঁকান ৯টি চার ও ৪টি ছক্কা।

এছাড়া রাহুল ত্রিপাঠি ২৯ বলে ৫৩ ও দীনেশ কার্তিক ৯ বলে অপরাজিত ২২ রান করেন। শেষদিকে ব্যাট হাতে নেমে ৫ বলে ৩ রান করে ইনিংসের শেষ বলে আউট হন সাকিব। হায়দরাবাদের পক্ষে দুই আফগান রশিদ খান ও মোহাম্মদ নবী শিকার করেন দুটি করে উইকেট।

জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে দ্বিতীয় ওভারে অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারকে হারায় হায়দরাবাদ। তৃতীয় ওভারের প্রথম বলে সাকিব সাজঘরে ফেরান ঋদ্ধিমান সাহাকে, নিজের প্রথম বলেই বোল্ড করে। এরপর অবশ্য সাকিব মোট ৩৪ রান বিলি কএছেন ৪ ওভারে, আর কোনো উইকেটের দেখা পাননি। তবে দ্বিতীয় উইকেটের পতন ঘটিয়ে দলকে এনে দেন জয়ের মোমেন্টাম।

৪০ বলে ৫৫ রান করে সাজঘরে ফেরার আগে বেয়ারস্টো দলের জয়ের আশার ফানুশ নিয়ে যান অনন্য উচ্চতায়। এরপর কলকাতাকে ভুগিয়েছেন মনিশ পাণ্ডে। অর্ধশতক পূর্ণ করে দলকে জয় এনে দেওয়ার আপ্রাণ চেষ্টাও করেছেন। তবে সফল হননি।

শেষ ওভারে হায়দরাবাদের প্রয়োজন ছিল ২২ রান। মনিশরা নিতে পেরেছেন ১১ রান। ফলে বরণ করে নিতে হয় ১০ রানের পরাজয়। নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে দলীয় সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৭৭ রান। ৪৪ বলে ৬১ রান করে অপরাজিত থাকেন ২টি চার ও ৩টি ছক্কা হাঁকানো মনিশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর 

টস : সানরাইজার্স হায়দরাবাদ

কলকাতা নাইট রাইডার্স : ১৮৭/৬ (২০ ওভার)
রানা ৮০, ত্রিপাঠি ৫৩, কার্তিক ২২, সাকিব ৩
রশিদ ২৪/২, নবী ৩২/২ নটরাজন ৩৭/১

সানরাইজার্স হায়দরাবাদ : ১৭৭/৫ (২০ ওভার)
মনিশ ৬১*, বেয়ারস্টো ৫৫
প্রসিধ ৩৫/২, কামিন্স ৩০/১, রাসেল ২১/১, সাকিব ৩৪/১

ফল : কলকাতা নাইট রাইডার্স ১০ রানে জয়ী।





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: