latest

‘২০২১-এ দিদি প্রার্থী হতে বললে রাজি হতাম না’, বসিরহাটে কেন একথা বললেন দেব?


সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মুখমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) যদি তাঁকে একুশের নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার প্রস্তাব দিতেন তাহলে কখনই হতেন না। উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বসিরহাট দক্ষিণ বিধানসভার ভ্যাবলার মাঠের জনসভায় একথাই বললেন দেব (Dev)। কিন্তু কেন একথা তৃণমূলের তারকা সাংসদের (TMC MP) মুখে? প্রশ্নের উত্তরের দেব, জানান এই রাজনীতির সঙ্গে তিনি খাপ খাওয়াতে পারছেন না। ধর্মের ভিত্তিতে মানুষের বিভাজন কিছুতেই মানতে পারছেন না।

মঙ্গলবার বসিরহাট দক্ষিণের তৃণমূল প্রার্থী (TMC Candidate) ডা. সপ্তর্ষি বন্দ্যোপাধ্যায়ের হয়ে প্রচার করতে গিয়েছিলেন দেব। সেখানেই অভিনেতা-সাংসদ বলেন, “আজকের রাজনীতি একেবারে আলাদা। বিশ্বাস করুন, ২০২১-এ দিদি যদি আমাকে বলতেন দেব ২০২১-এ তুমি প্রার্থী হও। আমি না বলতাম। আজকের রাজনীতি একেবারে আলাদা। কারণ আজকে আমি খাপ খাওয়াতে পারছি না। বুঝেই উঠতে পারছি না এটা কীসের নির্বাচন। আজকে ধর্ম নিয়ে রাজনীতি হচ্ছে। এদিকে হিন্দু নেতারা বোঝাচ্ছেন আপনারা সুরক্ষিত নেই। আমাদের ভোট দিন সুরক্ষা দেব। অন্যদিকে মুসলমান নেতারা মুসলিমরা ভাল নেই। আমাদের ভোট দিন সুরক্ষা দেব। তাহলে সুরক্ষিত আছে কারা?”

[আরও পড়ুন: ‘পাঠান’ ছবির সেটে করোনার হানা, আইসোলেশনে শাহরুখ খান]

নিজের প্রশ্নের উত্তর পরক্ষণেই দিয়ে দেন দেব। তৃণমূল সাংসদ জানান, আদতে ধর্মের ভিত্তিতে ভোট চাওয়া নেতারাই সবচেয়ে বেশি সুরক্ষিত আছেন। সাধারণ মানুষকে প্রভাবিত করে ভোট ব্যাংক ভরার চেষ্টা করেন। কাজের ভিত্তিতেই নেতা নির্বাচনের পরামর্শ দেন দেব। কারও প্ররোচনায় পা না দেওয়ার পরামর্শ দেন।

মঙ্গলবার বহিরাগত নেতাদেরও একহাত নেন তৃণমূল সাংসদ। বিজেপিকে কটাক্ষ করে তৃণমূলের উন্নয়নের খতিয়ান তুলে ধরেন। প্রশ্ন তোলেন, এখন যাঁরা বাইরে থেকে এসে ভোট চাইছেন আমফানের সময় তাঁরা কোথায় ছিলেন? রাজনৈতিক প্রচারের পাশাপাশি করোনা (Corona Virus) বাড়তে থাকা সংক্রমণ নিয়েও উপস্থিত জনতাকে সতর্ক করেন দেব। ভোট আসবে, ভোট যাবে। কিন্তু মানুষের প্রাণ চলে গেলে আর তা ফেরত পাওয়া যাবে না। এই কথা বলে সকলকে মাস্ক পরার পরামর্শ দেন তৃণমূলের তারকা সাংসদ।

[আরও পড়ুন: ভবানীপুরে রুদ্রনীলের প্রচারের ছবি পোস্ট করে এ কী লিখলেন বিজেপি প্রার্থী রাজীব! ]



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *