latest

‘লকডাউনের নামে ক্র্যাকডাউনে নেমেছে সরকার’


ঢাকা: লকডাউনের নামে সরকার বিরোধীদল দমনে ‘ক্র্যাকডাউনে’ নেমেছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) দুপুরে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই অভিযোগ করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এই লকডাউনকে কেন্দ্র করে তারা (সরকার) ক্র্যাকডাউনে নেমেছে। এই ক্র্যাকডাউনে নেমে সব বিরোধীদলের নেতাকর্মী, আমাদের দলের নেতাকর্মী, অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী, অন্যান্য সংগঠনের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করছে, হয়রানি করছে, মিথ্যা মামলা দিচ্ছে। লকডাউনের এই সুযোগটা নিয়ে তারা (সরকার) বিরোধীদলের বাড়িতে হামলা করছে। সারাদেশে দলের নেতাকর্মীরা কেউ বাড়িতে থাকতে পারছে না।’

‘আজকের এই সংবাদ সম্মেলনের মধ্য দিয়ে আমরা আহ্বান জানাচ্ছি- অবিলম্বে আমাদের নেতাকর্মীদের মুক্তি দিন এবং তাদের বিরুদ্ধে যে মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে তা প্রত্যাহার করুন। দেশে একটা গণতান্ত্রিক পরিবেশ সৃষ্টি করুন, গণতান্ত্রিক স্পেস তৈরি করুন। অন্যথায় এর খেসারত আপনাদেরকে অবশ্যই দিতে হবে’— বলেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করছে, বিশেষ করে পুলিশ বাহিনীকে ব্যবহার করে ঢাকা, চট্টগ্রাম, ব্রাক্ষণবাড়িয়াসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় অসংখ্য মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাদের নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার করছে।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বিভিন্ন সংগঠনের বিরুদ্ধে হয়রানি অভিযান ও রাতে গ্রেফতার অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। এখন পর্যন্ত আমরা যে হিসাব পেয়েছি তাতে বিএনপির ১৮১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পাবনায় একজন গ্রেফতার হওয়ার পর সে মারা গেছে।’

তিনি জানান, ছাত্রদলের গ্রেফতার হয়েছেন ৮১ জন, যুবদলের ৩০ জন, স্বেচ্ছাসেবক দলের ১১ জন। আগে গ্রেফতার হওয়া ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি রফিকুল আলম মজনু গতকাল জামিনে মুক্ত হলেও জেলগেট থেকে পুলিশ ফের গ্রেফতার করে নতুন মামলা দিয়েছে। বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুণ রায় চৌধুরীকেও একইভাবে নতুন করে আরেকটি মামলায় জড়িয়ে চারদিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।’

ফখরুল বলেন, ‘এই যে অবস্থাটা তৈরি হয়েছে, এটাকে আমাদের হালকা করে দেখার অবকাশ নেই। এভাবে অত্যাচার-নির্যাতন-গ্রেফতার-হত্যার মধ্য দিয়েই সরকারকে ক্ষমতায় টিকে থাকতে হবে। সেই কারণে এই পবিত্র রমজান মাসেও তারা এই ধরনের কাজে লিপ্ত হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘তাদের চক্রান্ত-ষড়যন্ত্রটা হচ্ছে এটাই যে, তারা যে করেই হোক গ্রেফতার-হত্যা-গুম-নির্যাতনের মধ্য দিয়ে বিরোধীদলের সংবিধান সম্মত অধিকার- মত প্রকাশ করবার স্বাধীনতা, কথা বলার স্বাধীনতা, লেখার স্বাধীনতা— সব কিছুকেই দমন করে একদলীয় শাসন ব্যবস্থা কায়েম করার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে।’

এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘সরকারের লক্ষ্য হচ্ছে কর্তৃত্ববাদী একদলীয় সরকার পুরোপুরিভাবে প্রতিষ্ঠা করা। সেই লক্ষ্যে তারা শুধু বিএনপি নয়, শুধু বাম জোট নয় বা অন্যান্য দল নয় বা ইসলামী দলগুলো নয় বা হেফাজত নয়- সকলের উপরে নিপীড়ন-নির্যাতন চালাচ্ছে। যাতে করে কোনো বিরোধী কণ্ঠ উচ্চারিত না হয়, ভিন্ন মত না আসে— এটাই হচ্ছে তাদের প্রধান লক্ষ্য।’

তিনি বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি- ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা যুদ্ধে জনগণ যে স্বপ্ন নিয়ে, আশা-আকাঙক্ষা নিয়ে এদেশে যুদ্ধ করেছিল, সেই দেশের জনগণ কখনোই এই ধরনের কর্তৃত্বাবাদী, একনায়কতন্ত্র, একদলীয় শাসনব্যবস্থা মেনে নেবে না। অবশ্যই দেশের মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই কর্তৃত্ববাদী নির্যাতনকারী সরকারকে সরতে বাধ্য করবে।’

The post ‘লকডাউনের নামে ক্র্যাকডাউনে নেমেছে সরকার’ appeared first on Sarabangla | Breaking News | Sports | Entertainment.



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *