খালেদা জিয়ার দ্রুত সিটি স্ক্যান করাতে হবে: ব্যক্তিগত চিকিৎসক


স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: করোনায় আক্রান্ত বিএনপির চেয়ারপাসন বেগম খালেদা জিয়ার ‘দ্রুত’ সিটি স্ক্যান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকেরা।

বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) বিকেলে গুলশানের বাসা ‘ফিরোজা’য় খালেদা জিয়াকে দেখে আসার পর তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক টিমের প্রধান অধ্যাপক এফ এম সিদ্দিকী এই সিদ্ধান্তের কথা জানান।

তিনি বলেন, ‘ম্যাডামের আজকে সেভেন ডে। কোভিডের পরিভাষায় ম্যাডাম এখন দ্বিতীয় সপ্তাহে এন্ট্রি হচ্ছেন। আমি আগেও বলেছি যে, কোভিডের প্রথম ও দ্বিতীয় সপ্তাহের মধ্যে একটা পার্থক্য আছে। কোভিডের যত সাবধানতা, যত জটিলতা সেগুলো সাধারণত সেকেন্ড উইকে হয়। সেজন্য আমরা আরেকটু সাবধানতা অবলম্বন করতে চাই।’

এফ এম সিদ্দিকী বলেন, ‘ওনার সব পরীক্ষা করা হয়েছে। শুধু সিটি স্ক্যানটা করানো হয়নি। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে, খুব দ্রুত স্বল্প সময়ের মধ্যেই সিটি স্ক্যান করিয়ে ফেলব। এছাড়া ওনার বায়ো কেমিক্যাল প্যারামিটারস, ফিজিক্যাল স্ট্যাটাস, অক্সিজেন স্যাচুরেশন, এপেটাইট, পালস, ব্লাড সার্কুলেশন অন্যান্য সব দিকে উনি মোটামুটি ভালো আছেন।’

সিটি স্ক্যান কোন হাসপাতালে করানো হবে?— এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা কোথায় সিটি স্ক্যান করাব, সে ব্যবস্থা করে রেখেছি। যখন করব তখন আপনারা জানতে পারবেন।’

এফএম সিদ্দিকী বলেন, ‘কোভিডে কখনোই আপনি আগে থেকে বলতে পারবেন না কন্ডিশন কেমন হবে। এটা খুব দ্রুত পরিবর্তনশীল একটা রোগ। আমরা খুব দ্রুত সিটি স্ক্যান করিয়ে ফেলব। আমরা যদি সিটি স্ক্যানের রিপোর্ট দেখে মনে করি যে, বাসায় রেখে চিকিৎসা করাটা ওনার জন্য ভালো হবে তাহলে আমরা বাসায় রাখব। আর সিটি স্ক্যান দেখে যদি মনে করি কয়েকদিনের জন্য ওনাকে হাসপাতালে অবজারভেশনে রাখা দরকার, আমরা সেটাও করব। আমাদের সিদ্ধান্ত নির্ভর করবে সিটি স্ক্যানের রিপোর্টের ওপরে।’

খালেদা জিয়ার বর্তমান অবস্থা তুলে ধরে তিনি বলেন, “ওনার নতুন যে একটু খানি উপসর্গ দেখা দিয়েছে সেটা হলো জ্বর। কালকে (বুধবার) রাতে ওনার একটু জ্বর উঠেছিলো, ১০০‘র মতো। আজকে সকালেও উনার জ্বর উঠেছে, ১০০ টাচ করেছে। কিছুক্ষণ জ্বর ছিলো। আমরা সবাই অসকালটেন্ট পড়ে আসছি, এই মাত্র উনার চেস্ট পরীক্ষা করেছি। যেহেতু চেস্ট ক্লিয়ার আছে। আমরা মনে করছি উনি ভালো আছেন।”

ডায়াবেটিস ও আর্থাটাইটিসের অবস্থা কেমন?— জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ডায়াবেটিসের ব্লাড সুগার এখন খুব ভালো কনট্রোলে আছে। আমরা প্রতিদিন ব্লাড সুগার তিনবার মনিটর করছি। সেই অনুযায়ী আমরা ট্যাবলেট ও ইনস্যুলিন দিয়ে ব্লাড সুগার কনট্রোল করছি। আর্থাটাইরিসে উনার ফিজিও থ্যারাপি চলছে, আনুষঙ্গিক যে চিকিৎসাগুলো দরকার, সেগুলো সবই চলছে। উনার কোভিড সংক্রান্ত মানসিক অবস্থা ভালো, উনি মানসিকভাবে বেশ স্ট্যাবল আছেন, যথেষ্ট ভালো আছেন। ’

লন্ডনে অবস্থারত খালেদা জিয়ার পুত্রবধূ ডা. জোবাইদা রহমানমসহ যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে বিশেষজ্ঞ চিতিসকদের নিয়ে যোগাযোগ করে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা করা হচ্ছে বলে জানান এফএম সিদ্দিকী।

এসময় তার সঙ্গে ছিলেন খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক টিমের সদস্য বক্ষব্যধি ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক আব্দুস শাকুর খান, ইউরোলজিস্ট অধ্যাপক এ জেড এম জাহিদ হোসেন, ডা. মোহম্মদ আল মামুন এবং বিএনপির চেয়ারপারসনের প্রেসউইং সদস্য শায়রুল কবির খান।

সারাবাংলা/এজেড/এমও





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: