latest

তাণ্ডবকারীদের বিচার চেয়ে হেফাজত নেতার পদত্যাগ


ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: হেফাজতে ইসলামের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মুফতি আব্দুর রহিম কাসেমী পদত্যাগ করেছেন। শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে পদত্যাগের কথা জানান তিনি।

বিবৃতিতে এতে উল্লেখ করা হয়, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডবের ঘটনায় হেফাজতের জড়িতদের কর্মী-সমর্থকদের বিচার চান আব্দুর রহিম কাসেমী। স্বাধীনতার ৫০ বছর উদযাপনের সময় দেশব্যাপী হেফাজতের কর্মসূচিতে চরম বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয় বলে উল্লেখ করেন তিনি।

এই তাণ্ডবের ঘটনা ‘নজিরবিহীন ও অমানবিক’ উল্লেখ করে আব্দুর রহিম কাসেমী বলেন, ‘দেশ ও জনগণের জান-মালের ক্ষতি সাধন ইসলামসম্মত নয়। এ সমস্ত কার্যক্রম থেকে নিষ্ক্রিয় থেকেছি আমি।’

আরও পড়ুন: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজত-পুলিশ সংঘর্ষ, নিহত ৫

নিজের তত্ত্বাবধানে থাকা মাদরাসাগুলোর শিক্ষক-ছাত্রদের ‘দেশ ও ইসলামবিরোধী’ কার্যকলাপে যোগদান না করতে বাধ্য করার কথা জানান তিনি। তিনি বলেন, ‘হরতালে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগসহ জানমালের ক্ষয়ক্ষতি সাধনে আমি ও আমার ছাত্ররা অংশ নেয়নি।’

হেফাজতের চলমান কার্যক্রমে জড়িত না থাকার কথা উল্লেখ করে আব্দুর রহিম কাসেমী আরো বলেন, ‘তাদের নাশকতামূলক কার্যক্রম অবৈধ। যাদের প্ররোচনায় রাষ্ট্রীয় সম্পদের ক্ষতি হয়েছে, তাদের চিহ্নিত করে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।’

উল্লেখ্য, ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগমনের প্রতিবাদে গত ২৬-২৮ মার্চ কর্মসূচি দেয় হেফাজত। এতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যাপক তাণ্ডব চালানো হয়।

আরও পড়ুন: সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠান পণ্ড করতেই তাণ্ডবলীলা: কাদের

এসব ঘটনায় দায়ের করা ৫৫টি মামলায় এজাহারভুক্ত আসামি করা হয়েছে ৪১৪ জনকে। এ ছাড়া অজ্ঞাতনামা রয়েছেন আরো ৩৫ হাজারের বেশি। শুক্রবার পর্যন্ত ৩৪৬ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সারাবাংলা/একে





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *