latest

কীভাবে ভালো করা যায় তা শেখার চেষ্টা করছি : তাসকিন


কীভাবে ভালো করা যায় তা শেখার চেষ্টা করছি : তাসকিন

দীর্ঘদিন পর জাতীয় দলে ফেরা সুখকর হল না তাসকিন আহমেদের জন্য। পেস বান্ধব হিসেবে গণ্য করে যে উইকেটে ৩ পেসার নিয়ে খেলতে নেমেছে বাংলাদেশ, সেখানে পেসার-স্পিনার সবাই উইকেটের জন্য খাবি খাচ্ছেন। হতাশ তাসকিন তাই ম্যাড়মেড়ে উইকেটে ভালো করার শিক্ষা নিতে মনোযোগী।

কীভাবে ভালো করা যায় তা শেখার চেষ্টা করছি : তাসকিন

চতুর্থ দিনের খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে তাসকিন বলেন, ‘সত্যি কথা বলতে টেস্ট ক্রিকেটে এরকম উইকেট বোলারদের জন্য অনেক কঠিন। এই উইকেটে প্রতিপক্ষের উইকেট ফেলার সুযোগই কম।’

Also Read – জয়ের লক্ষ্যেই শেষ দিন মাঠে নামবে শ্রীলঙ্কা

কঠিন উইকেটে তাসকিনই বাংলাদেশের মূল পেসারের ভূমিকায়। টেস্টের নিয়মিত দুই মুখ আবু জায়েদ রাহী ও এবাদত হোসেন মিলে করেছেন ৩০ ওভার, সেখানে তাসকিন একাই ২৫। তিনি জানান, নিজের সর্বোচ্চ চেষ্টা করে চলেছেন ম্যাচজুড়ে।

তাসকিনের ভাষায়, ‘টেস্ট ক্রিকেটে বোলাররা উইকেট থেকে টার্ন বা সিম পেলে আরেকটু ভালো করতে পারে। এখন এরকম উইকেটে কিছু করার নেই। আমরা সেরাটা দিয়েছি। বলতে পারেন ভিন্ন অভিজ্ঞতা হচ্ছে। শেখার চেষ্টা করছি যে এরকম উইকেটে কীভাবে ভালো বল করা যায়।’

কঠিন কন্ডিশনে বল করে তাসকিন বুঝতে পেরেছেন ফিটনেসের গুরুত্ব। সাম্প্রতিক সময়ে ফিটনেস নিয়ে অনেক কাজ করছেন এই পেসার। রীতিমত তিনি এখন সুঠাম দেহের অধিকারী। এই ফিটনেসই এমন উইকেটে তাসকিনদের একমাত্র ভরসা।

তিনি জানান, ‘এখানে নিয়মিত একটা ব্যাপার ভালো জায়গায় বল করে যাওয়া, ব্যাটসম্যানকে একটা পরিকল্পনায় বল করে যাওয়া। এটা নিজের জন্য অনেক বড় শিক্ষা। আর এরকম কন্ডিশনে যথেষ্ট স্কিল ও ফিটনেস না থাকলে ভালো করা যায় না, এটাও একটা বড় শিক্ষা।’

তাসকিন আরও বলেন, ‘এটা আসলে মেনে নিতেই হবে। কন্ডিশন যেমন হোক। আবহাওয়া বা উইকেট তো আমাদের হাতে নেই। যেখানে মনোযোগ দিচ্ছি তা হল– ভালো জায়গায় বল করা, কিভাবে রান আটকে রাখা যায়। আমি আমার শক্তি অনুযায়ী বল করার চেষ্টা করছি। যেহেতু উইকেটে হেল্প নাই, কিছু তো করার নাই। দলকে সেরা বল করে সাহায্য করার চেষ্টাই করছি।’



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: