করোনা ঠেকাতে আরও কঠোর হল আইপিএলের বায়োবাবল


করোনা ঠেকাতে আরও কঠোর হল আইপিএলের বায়োবাবল

সময় যত গড়াচ্ছে, আইপিএলের গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে ততই প্রশ্ন উঠছে। ভারতে করোনা পরিস্থিতি আঁতকে ওঠার মত। অথচ এরই মাঝে চলছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ। মৃত্যুপুরীতে পরিণত হওয়া দিল্লীতেও এখন আইপিএলের ম্যাচ হচ্ছে। ভয় ও শঙ্কায় অনেক খেলোয়াড় আইপিএল ছেড়ে যাচ্ছেন।

করোনা ঠেকাতে আরও কঠোর হল আইপিএলের বায়োবাবল
খেলোয়াড়দের জন্য বিধিনিষেধ আরও কঠোর হল। ফাইল ছবি

এত সংকটের মাঝে আইপিএল চালিয়ে যাওয়া নিয়ে প্রশ্ন ওঠার আরেক কারণ খেলোয়াড়দের স্বাস্থ্যগত সুরক্ষার বিষয়টি। চারিদিকে যখন জীবাণুর সংক্রমণ, তখন খেলোয়াড়রাও ছোঁয়াচে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারেন। এ কথা মাথায় রেখে বিসিসিআই বায়ো সেফটি বাবল বা জৈব সুরক্ষা বলয় আরও কঠোর করেছে।

জৈব সুরক্ষা বলয়ে বাইরের পৃথিবীর সাথে বলতে গেলে কোনো সংযোগই নেই ক্রিকেটারদের। এবার যেন আরও সিলগালা করা হচ্ছে বলয়ের দ্বার।

Also Read – হায়দরাবাদের পঞ্চম হার, ফের শীর্ষে চেন্নাই

আগের প্রণীত নীতিমালায় খেলোয়াড়দের বাইরে থেকে খাবার আনায় নিষেধাজ্ঞা ছিল না। কেউ চাইলেই খাবার অর্ডার করে আনাতে পারতেন। অনেক খেলোয়াড়ের খাবার আসতো তার বাড়ি বা আত্মীয়স্বজনের বাড়ি থেকেও। সেই সুযোগ এখন আর নেই। বিসিসিআই সাফ জানিয়ে দিয়েছে, বাইরে থেকে কোনো খাবার আনা যাবে না। বলয়ের মধ্যে প্রস্তুতকৃত খাবারই গ্রহণ করতে হবে দলগুলোর সদস্যদের।

বিসিসিআইয়ের শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তা হেমঙ্গ আমিন বলেন, ‘’আইপিএলের শুরুর দিকে বাইরে থেকে আনা খাবার খেতে ক্রিকেটারদের বাধা দেওয়া না হলেও এবার এই সুবিধা তুলে নেওয়া হচ্ছে। জৈব বলয়ের সুরক্ষা ও সাবধানতা আরও বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।’

পুরো টুর্নামেন্ট খেলতে অনেক বার করোনা পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে ক্রিকেটারদের। করোনা পরীক্ষার সংখ্যাও এখন বেড়ে গেছে। আগে প্রতি ৫ দিন পর পর প্রত্যেকে একবার করে করোনা পরীক্ষা করা হত। এখন থেকে প্রত্যেকের করোনা পরীক্ষা করা হবে ২ দিন পর পর। বিদেশি ক্রিকেটারদের অনেকে আতঙ্কে আইপিএল ছেড়ে দেশে ফিরে গেছেন। বাকিদের অভয় দিতেই মূলত বলয়ের নিয়মকানুন আরও কঠোর করেছে বিসিসিআই।



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: