টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে মরিয়া মালিক


টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে মরিয়া মালিক

এ বছরই মাঠে গড়াবে আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ৭ম আসর। ভারতে অনুষ্ঠিতব্য এ আসরে ফেভারিট হিসেবে অংশ নেবে যে কয়টি দল, তাদের একটি সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন পাকিস্তান। দলটির হয়ে আসন্ন এ বিশ্বকাপে অংশ নিতে মুখিয়ে আছেন তারকা ক্রিকেটার শোয়েব মালিক।

মুশফিকের প্রতি মালিকের আহ্বান
কয়দিন আগেই মালিক জানিয়েছেন, বিশ্বকাপের পরও টি-টোয়েন্টিকে বিদায় জানানোর ভাবনা নেই তার। ফাইল ছবি

অভিজ্ঞ এই অলরাউন্ডার বর্তমান সময়ের পুরনো খেলোয়াড়দের একজন। ফর্ম এখনও তার পক্ষে কথা বলছে, যদিও মালিক বর্তমানে দলে নেই। ব্যাপক পরীক্ষা-নিরীক্ষা আর যাচাই-বাছাইয়ের পথে হেঁটে টিম ম্যানেজমেন্ট টি-টোয়েন্টি দল থেকে বাদ দিয়েছে আগেই টেস্ট ও ওয়ানডেকে বিদায় জানানো এই ক্রিকেটারকে।

তবে ৩৯ বছর বয়সী ক্রিকেটার বিশ্বকাপ খেলার জন্য মরিয়া। জানিয়েছেন, বিশ্বকাপকে লক্ষ্য রেখে কঠোর পরিশ্রম করে নিজেকে প্রস্তুত রাখছেন তিনি।

Also Read – বায়োবাবলে হাঁপিয়ে উঠেছেন মুস্তাফিজ

পাকিস্তানের এক সংবাদমাধ্যমকে মালিক বলেন, ‘আমি সত্যিই এ বছরের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে মুখিয়ে আছি। এই চ্যালেঞ্জের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করতে অনেক কঠোর পরিশ্রম করছি।’

মালিকের পরিশ্রম ক্যারিয়ারে কখনই থামেনি। তবে নানা সময়ে টিম ম্যানেজমেন্ট বা কোচিং স্টাফের হটকারি সিদ্ধান্তের কারণে দলের বাইরে থেকেছেন। সীমিত ওভারের ক্রিকেটে পাকিস্তানের মিডল অর্ডারের অবস্থা সন্তোষজনক নয়। দুর্দশা কাটাতে অনেকেই মালিককে দলে নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। দল অবশ্য তরুণদের ওপরই বেশি আস্থা রাখছে।

মালিক মনে করছেন, দলের শক্তিমত্তা বাড়ানোর জন্য সিনিয়র ক্রিকেটারদের গুরুত্ব দেওয়া প্রয়োজন। তিনি বলেন, ‘এই দলে খেলোয়াড়দের নির্বাচন করা হয় পছন্দ ও অপছন্দের ভিত্তিতে। আমি কারও বিরুদ্ধে বলছি না, তবে এমনটা অনেকবার দেখেছি। মিসবাহ দুই পদে নিযুক্ত হলেও কোচিং করানোর জন্য প্রস্তুত ছিল না।’

মালিক আরও বলেন, ‘আমি মনে করি শক্তিশালী দল তখনই হবে যখন সিনিয়র ক্রিকেটাররা সুযোগ পাবে। আমার মতে, মোহাম্মদ আমির, ওয়াহাব রিয়াজ, ইমাদ ওয়াসিমের মত ক্রিকেটারকে দলে ফেরান উচিৎ।’



Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *