আল জাজিরার প্রতিবেদনে দুর্নীতির প্রমাণ পায়নি আইসিসি


আল জাজিরার প্রতিবেদনে দুর্নীতির প্রমাণ পায়নি আইসিসি

২০১৮ সালে বেশ কয়েকটি ধারাবাহিক পর্বের মাধ্যমে ক্রিকেটে ফিক্সিং নিয়ে তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয় আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরায়। সেবার বেশ কয়েকজন বাজিকরকে চিহ্নিত করার পাশাপাশি ম্যাচ গড়াপেটার অভিযোগ আসে বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারের ও ক্রিকেট দলের বিরুদ্ধেও।

সেই প্রতিবেদন নিয়ে দীর্ঘ প্রায় ৩ বছর তদন্ত করে অভিযোগ তোলার মত পর্যাপ্ত সাক্ষ্যপ্রমাণ পায়নি আইসিসি। এক বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

Also Read – ভন মানসিক কোষ্ঠকাঠিন্যে ভুগছেন : সালমান বাট

 

২০১৮ সালের মে-জুন মাসে স্পট ফিক্সিংয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারদের জড়িত থাকার অভিযোগ তুলে প্রতিবেদন প্রকাশ করে ক্রিকেট বিশ্বে রীতিমতো হইচই ফেলে দেয় জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা। সংবাদমাধ্যমটির দাবি ছিল, ২০১৬ ও ২০১৭ সালে ভারতের বিপক্ষে টেস্টে ফিক্সিং করেছিলেন ৩ জন ইংলিশ ও ২ জন অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার। একইসাথে গলে পিচ টেম্পারিংয়ের অভিযোগও এসেছে কিউরেটরের বিরুদ্ধে। তাছাড়া ভারতের উল্লেখযোগ্য বাজিকরের বিরুদ্ধেও আসে গুরুতর অপরাধের অভিযোগ।

আরও জানানো হয়েছিল, ২০১৬ সালে ভারত-ইংল্যান্ড চেন্নাই টেস্ট ও ২০১৭ সালে ভারত-অস্ট্রেলিয়া রাঁচি টেস্টে ফিক্সিং হয়েছিল। এমন অভিযোগে নড়েচড়ে বসেছিল আইসিসি। তবে আইসিসির দুর্নীতি দমন বিভাগ এতদিন তদন্ত করে কোনো প্রমাণ পায়নি। এছাড়া ফিক্সিংয়ের দাবিতে প্রচারিত প্রতিবেদনে অনুমিত তথ্যের উপস্থিতি ছিল বলে জানানো হয়েছে, যার কোনো প্রমাণ মেলেনি।

আইসিসি তাই ঐ প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে কোনো ক্রিকেটার বা ক্রিকেট সংশ্লিষ্টের নামে অভিযোগ না আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আইসিসির ‘ইন্টেগ্রিটি’ বিষয়ক মহাব্যবস্থাপক অ্যালেক্স মার্শাল বলেন, ‘ফিক্সিং নিয়ে তৈরি প্রতিবেদনকে আমরা স্বাগত জানাই। তবে অভিযোগ করতে হলে পর্যাপ্ত প্রমাণ থাকতে হবে। ঐ প্রতিবেদনে যেসব দাবি করা হয়েছে তার মৌলিক ভিত্তি দুর্বল বলে তদন্তে উঠে এসেছে।’





Source link