মালিককে নিয়ে বিস্ফোরক দাবি আফ্রিদির


মালিককে নিয়ে বিস্ফোরক দাবি আফ্রিদির

নিজ দেশের একটি টিভি চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় সাবেক সতীর্থ শোয়েব মালিককে নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি। মালিকের কারণে তিনি খেলা ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন বলেও দাবি করেছিলেন।

স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে মালিককে নিয়ে বোমা ফাটালেন আফ্রিদি
শোয়েব মালিক ও শহীদ আফ্রিদি। ফাইল ছবি

আফ্রিদির মত মালিকও পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক এবং এখনও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছেন। ২০০৭ সালে দুঃস্বপ্নের ওয়ানডে বিশ্বকাপের পর নেতৃত্ব পান মালিক, অধিনায়ক ছিলেন ২০০৯ সাল পর্যন্ত।

আফ্রিদির দাবি, এ সময় দলের ভেতর রাজনীতি শুরু করেন মালিক। তার আচরণ ছিল ঔদ্ধত্যপূর্ণ, তাই সতীর্থরাও তাকে পছন্দ করতেন না। সব মিলিয়ে ক্ষুব্ধ আফ্রিদি খেলা ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন। এমনকি তা পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে (পিসিবি) অবহিতও করেছিলেন।

Also Read – বল টেম্পারিং কাণ্ডে আবারও প্রশ্নের মুখে অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটাররা

আফ্রিদি বলেন, ‘শোয়েব মালিক দলকে একজোট করার বদলে ড্রেসিংরুমে রাজনীতি করত। সিনিয়র বা জুনিয়র কারও সঙ্গেই ওর সুসম্পর্ক ছিল না। সবাই ওর উপর রেগে ছিল। ও দলে থাকলে আমি খেলব না, এটা ঠিক করে ফেলেছিলাম। এটা বোর্ডকে জানিয়ে দিয়েছিলাম।’

আফ্রিদি পিসিবির কাছে পরোক্ষভাবে নালিশ করেও নাকি লাভ হয়নি। তবে তারকা এই অলরাউন্ডার জানান, তার পরিবারের সদস্যদের কথায় তিনি অবসরের সিদ্ধান্ত থেকে তখন সরে আসেন। তার ভাষায়, ‘অবস্থার বদল না হওয়ায় খেলা ছেড়ে দেওয়ার কথাও ভেবেছিলাম। কিন্তু পরিবারের বড়দের কথা শুনে নিজের সিদ্ধান্ত থেকে সরে দাঁড়াই।’

আফ্রিদি আরও জানান, এক ঋষির কথায় সে সময় নিজেকে সামলে নিয়েছিলেন তিনি।

প্রসঙ্গত, আফ্রিদি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায় নিয়ে এখন শুধু ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে খেলে যাচ্ছেন। মালিক এখনও টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর নেননি। আগামী বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে জাতীয় দলে ফিরতে তোড়জোড় শুরু করেছেন এই অলরাউন্ডার।



Source link