সাইফউদ্দিন তাণ্ডবে আবাহনীর মান বাঁচানো পুঁজি


সাইফউদ্দিন তাণ্ডবে আবাহনীর মান বাঁচানো পুঁজি

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে (ডিপিএল) সবচেয়ে শক্তিশালী দল হিসেবে গণ্য করা যেতে পারে আবাহনী লিমিটেডকে। দলটির হয়ে খেলছেন জাতীয় দলের এক ঝাঁক তারকা। অন্যদিকে তরুণ ও অনভিজ্ঞ দলগুলোর একটি ওল্ড ডিওএইচএস। অথচ ওল্ড ডিওএইচএসের বোলারদের সামনেই নড়বড়ে হয়ে পড়ল আবাহনীর ব্যাটিং অর্ডার।

তরুণ ডিওএইচএসের সামনে কোণঠাসা তারকায় ঠাসা আবাহনী

‘হোম অব ক্রিকেট’ খ্যাত মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে বৃষ্টির বাগড়ায় পড়ে আবাহনীর ইনিংস। বৃষ্টি থামলে ম্যাচের দৈর্ঘ্য কমে আসে ১৯ ওভারে। বৃষ্টি উধাও হওয়ার সাথে সাথে অবশ্য আবাহনীর স্বস্তিও উধাও হয়ে যায়। শেষদিকে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের ক্যামিওতে অবশ্য লড়াকু সংগ্রহ পায় দল।

Also Read – ‘জীবন’ পেয়েও ব্যাট হাতে ব্যর্থ শান্ত

একের পর এক উইকেট হারাতে থাকা আবাহনী ৭২ রানে হারায় পঞ্চম উইকেট। নাঈম শেখ ২৩, নাজমুল হোসেন শান্ত ১১, মুশফিকুর রহিম ৬, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ৮ রান করে বিদায় নেন। এরপর দলের হাল ধরেন আফিফ হোসেন ধ্রুব ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন।

দুইজনের দায়িত্বশীল ব্যাটিং দলকে এনে দেয় লড়াকু পুঁজি। আফিফ দেখেশুনে খেললেও বোলারদের ওপর চড়াও হন সাইফউদ্দিন। ব্যাট হাতে সুযোগ পেলে নিজেকে প্রমাণের জন্য মুখিয়ে ছিলেন। সেই সুযোগ পেতেই শুরু করেন বাউন্ডারির বৃষ্টি। ইনিংসের শেষ বলের আগের বলে বাউন্ডারি লাইনে তালুবন্দী হওয়ার আগে ১৯ বলে করেন ৪০ রান, হাঁকান ২টি চার ও ৩টি ছক্কা। আফিফ ২৯ বলে ২৭ রান করে অপরাজিত থাকেন।

নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে আবাহনীর সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৩৫ রান। ওল্ড ডিওএইচএসের পক্ষে মোহাইমিনুল খান ও রকিবুল হাসান দুটি করে উইকেট শিকার করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর 

টস : ওল্ড ডিওএইচএস স্পোর্টস ক্লাব

আবাহনী লিমিটেড : ১৩৫/৬ (১৯ ওভার)
সাইফউদ্দিন ৪০, আফিফ ২৭*
রকিবুল ১০/২, মোহাইমিনুল ২৫/২

জয়ের জন্য ওল্ড ডিওএইচএস স্পোর্টস ক্লাবের প্রয়োজন ১৩৬ রান।



Source link