Actress turns MP Nusrat Jahan’s cryptic post on instagram ।Sangbad Pratidin


সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দাম্পত্য সম্পর্কের ‘অবনতি’ এবং ‘নতুন সম্পর্কে’ জড়িয়ে পড়া, টলিপাড়ায় কান পাতলে নুসরতকে নিয়ে সেসব প্রসঙ্গেই আলোচনা শোনা যেত। তবে শুক্রবার থেকে কাহিনি নয়া মোড় নিয়েছে। শোনা যাচ্ছে, মা হতে চলেছেন অভিনেত্রী-সাংসদ। তিনি নিজে অন্তঃসত্ত্বা নাকি সন্তান দত্তক নিতে চলেছেন, সে বিষয়ে একটি শব্দও খরচ করেননি নুসরত স্বয়ং। তারই মাঝে বসিরহাটের তৃণমূল সাংসদের ইনস্টাগ্রাম (Instagram) স্টোরি নিয়ে তৈরি হল নয়া জল্পনা।

শুক্রবার রাত থেকে তাঁর ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে জ্বলজ্বল করছে একটি ফুলের ছবি। আর তাতে লেখা রয়েছে, “তুমি তোমার মতো করে বেড়ে ওঠো।” মুখে কিছু না বললেও ইনস্টাগ্রাম স্টোরির মাধ্যমে কি নতুন অতিথিকে নিয়ে কোনও বার্তা দিতে চাইলেন অভিনেত্রী? সেই প্রশ্নেই এখন মুখর চতুর্দিক।

[আরও পড়ুন: আচমকা বিয়ে করলেন অভিনেত্রী ইয়ামি গৌতম, পাত্র কে জানেন?]

ধর্মীয় ভেদাভেদকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে ব্যবসায়ী নিখিল জৈনের (Nikhil Jain) সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন নুসরত। বিয়েও করেন দু’জনে। তাঁদের এলাহি বিয়ে নজর কেড়েছিল সকলের।

Nusrat

 

তারপর থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় একের পর এক ছবি, ভিডিও পোস্ট করতেন নুসরত (Nusrat Jahan)। আর সেসবের মাধ্যমে নিখিল এবং নুসরতের গভীর ভালবাসাই যেন প্রকাশ পেত। তাঁদের ভালবাসা, খুনসুটি নিয়ে মেতে থাকতেন অনুরাগীরাও।

nusrat-nikhil

 

তবে কয়েকমাস ধরে যেন বদলে গিয়েছে সব কিছু। শোনা যাচ্ছে, নিখিলের সঙ্গে কোনও সম্পর্কই রাখেন না নুসরত। একসঙ্গে থাকেন না তাঁরা। বিয়ে নিয়ে যখন টানাপোড়েন চলছে ঠিক তখনই সামনে আসে নুসরত-যশের ‘ঘনিষ্ঠতা’। একসঙ্গে আজমের শরিফ বেড়াতে যাওয়ার ছবি ভাইরাল হয়ে যায়। তারপর থেকে কখনও ডিনার আবার কখনও কফি ডেটেও বারবার একসঙ্গে দেখা গিয়েছে তাঁদের।

Yash-Nusrat

 

যদিও প্রেম করছেন কিনা, সে বিষয়ে যশ কিংবা নুসরত কেউ কিছুই বলেননি। সম্পর্ক নিয়ে গুঞ্জনের মাঝে এবার শোনা যাচ্ছে নুসরতের মা হওয়ার খবর। এখনও এ বিষয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি তাঁর।

[আরও পড়ুন: ‘প্রচার পাওয়ার কৌশল’, 5G পরিষেবার বিরুদ্ধে জুহির আবেদন খারিজ আদালতের, হল জরিমানাও]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ

নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে





Source link