‘পাকিস্তানের দুঃশাসনের বিরুদ্ধে ৬ দফা ছিল বাঙালির মুক্তির সনদ’


সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য এবং ১৪ দলের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র আমির হোসেন আমু এমপি বলেছেন, ৬ দফা ছিল বাংলার মুক্তির সনদ। যা ধাপে ধাপে ৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে মুক্তি সংগ্রামের মাধ্যমে আমরা স্বাধীন দেশ অর্জন করতে সক্ষম হয়েছি।

রোববার (৬ জুন) ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস উপলক্ষে এক ভিডিও বার্তায় তিনি এসব কথা বলেন।

আমির হোসেন আমু বলেন, ‘পাকিস্তান সৃষ্টির শুরু থেকেই পাকিস্তানের জনসংখ্যার শতকরা ৫৬ জন। বাঙালি কোনোদিন তাদের স্বাধিকার ভোগ করতে পারেনি। এক ধরনের ঔপনিবেশিক শাসন এবং শোষণ পূর্ব বাংলার ওপর চাপিয়ে রাখা হয়েছিল এবং শোষণের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছিল। এই জিনিসটি অনুধাবন ও চিহ্নিত করে এই দুঃশাসন থেকে মুক্তির দিশারি হিসেবে ৬ দফা দাবি প্রণয়ন করে জনগণের সামনে বাংলার মানুষের মুক্তির সনদ হিসেবে উপস্থাপন করেছিলেন বঙ্গবন্ধু।’

তিনি বলেন, ‘ঐতিহাসিক ৬ দফা বাঙালির মুক্তির পথ দেখিয়েছে। নিজেদের অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করেছে।’ আমির হোসেন আমু ৭ জুন মুক্তির সনদ দাবি আদায়ে শহিদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়ে ভিডিও বার্তায় আমির হোসেন আমু বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর নির্দেশিত পথেই তার কন্যা শেখ হাসিনার সাহসী নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়নে ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ।’

সারাবাংলা/এনআর/পিটিএম





Source link