রাহাতুলের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ব্রাদার্সের দাপুটে জয়


রাহাতুলের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ব্রাদার্সের দাপুটে জয়

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের (ডিপিএল) পঞ্চম রাউন্ডের খেলায় খর্বশক্তির পারটেক্স স্পোর্টিং ক্লাবকে ৩৩ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে ব্রাদার্স ইউনিয়ন। ম্যাচে ব্যাটে-বলে অলরাউন্ড নৈপুণ্য প্রদর্শন করেছেন ব্রাদার্সের ক্রিকেটার রাহাতুল ফেরদৌস। 

বিকেএসপিতে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে পারটেক্সের বোলিং লাইনআপের তোপের মুখে পড়ে দুই জয় পাওয়া ব্রাদার্স। এর আগে চারটি ম্যাচ হারা পারটেক্স এই ম্যাচে যেন জয়ের পণ করেই নেমেছে। দলীয় ৪ রানে প্রথম ও ১৪ রানে দ্বিতীয় উইকেটের পতন ঘটিয়ে ব্রাদার্সকে চেপে ধরে পারটেক্স।

Also Read – মুশফিক-মোসাদ্দেকের ব্যাটিং তাণ্ডবে জয়ে ফিরল আবাহনী

একপর্যায়ে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে ব্রাদার্স। তবে রাহাতুল ফেরদৌস জাভেদ প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। চাপের মুখে উপহার দেন ধৈর্যশীল ব্যাটিং। ৪৪ বলে গড়া ৫৪ রানের ইনিংস দলকে এনে দেয় সম্মানজনক সংগ্রহ। রাহাতুলের ব্যাট থেকে এসেছে ৩টি চার ও ২টি ছক্কা। এছাড়া শেষদিকে তার যোগ্য সঙ্গী হয়ে উঠেছিলেন নাঈম ইসলাম জুনিয়র। ২১ বলে ৩৪ রান করেন তিনি।

আগের ম্যাচ খেলে দীর্ঘ দেড় বছর পর প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে ফেরা পেসার শাহাদাত হোসেন রাজিব এই ম্যাচ দিয়ে দীর্ঘ সময় পর উইকেটের দেখা পেয়েছেন। ৪ ওভার বল করে ২৬ রানের খরচায় জুনায়েদ সিদ্দিকী ও হাবিবুর রহমানের উইকেট শিকার করেন তিনি। তার চেয়েও নিয়ন্ত্রিত ছিল অধিনায়ক তাসামুল হকের বোলিং। ৪ ওভার বল করে তিনিও দুটি উইকেট শিকার করেছেন, তবে মাত্র ১৮ রানের খরচায়।

জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে পারটেক্স পড়ে ব্যাটিং বিপর্যয়ে। স্কোরবোর্ডে কোনো রান তোলার আগেই প্রথম উইকেট হারানো দলটি গুটিয়ে যায় ১১৪ রানে, ১৯.৫ ওভারে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৪ রান করেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ধীমান ঘোষ। ৩৭ বলের মোকাবেলায় তিনি হাঁকান ৫টি চার ও ১টি ছক্কা।

ব্যাট হাতে দারুণ পারফর্ম করা রাহাতুল বল হাতেও ছিলেন উজ্জ্বল। ৩৪ রান খরচ করলেও তিনি শিকার করেন চারটি উইকেট। সাকলাইন সজীব ও সুজন হাওলাদার পেয়েছেন দুটি করে উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর 

টস : ব্রাদার্স ইউনিয়ন

ব্রাদার্স ইউনিয়ন : ১৪৭/৮ (২০ ওভার)
রাহাতুল ৫৪, নাঈম জুনিয়র ৩৪
তাসামুল ১৮/২, শাহাদাত ২৬/২

পারটেক্স স্পোর্টিং ক্লাব : ১১৪/১০ (১৯.৫ ওভার)



Source link