Rare letters of Satyajit Ray will be out in KMC’s Purashree with help of Sandip Ray


কৃষ্ণকুমার দাস: নিজের ইচ্ছা না থাকলেও মায়ের ইচ্ছাকে মর্যাদা দিতে ভরতি হন বিশ্বভারতীতে। অবশ্য ক্লাস শুরুর কিছুদিন পর তাঁর খুব ভাল লাগে গুরুদেবের শিক্ষাঙ্গন। চিত্রশিল্পী নন্দলাল বসু ও বিনোদবিহারী মুখোপাধ্যায়ের কাছে শিল্পকলার নানা দিক শেখেন। কলকাতায় মা সুপ্রভা রায়কে শান্তিনিকেতন থেকে তখন লেখা নানা চিঠিতে সেই ‘অনুভব ও উপলব্ধির কথা’ লেখেন সত্যজিৎ রায় (Satyajit Ray)। তুলে ধরেন শান্তিনিকেতন আশ্রমের কাল ও সময়ের কাহিনি। লকডাউনের মধ্যে বিশ্ববরেণ্য চলচ্চিত্রকারের সেই চিঠির কয়েকটি হাতে পান পুত্র সন্দীপ রায় (Sandip Ray)। একইসময়ে সাগরময় ঘোষকে লেখা সত্যজিতের পত্রগুচ্ছ পেয়েছেন পুত্র। অপ্রকাশিত সেই দুই পর্বের চিঠি-পত্র ছাড়াও ‘পথের পাঁচালি’র স্রষ্টার অগ্রন্থিত রচনাগুচ্ছও থাকছে ‘জন্মশতবর্ষে সত্যজিৎ’ শীর্ষক কলকাতা পুরসভার পত্রিকা ‘পুরশ্রী’র বিশেষ সংখ্যায়।

প্রখ্যাত সাহিত্যিক সুকুমার রায়ের (Sukumar Ray) পুত্রের জন্মশতবর্ষে ‘পুরশ্রী’তে থাকছে দেশবিদেশের সত্যজিৎ বিশেষজ্ঞ ও সহকর্মীদের রচনা ও অভিজ্ঞতার কাহিনি। প্রায় ৫০৪ পাতার ‘পুরশ্রী’তে কলম ধরেছেন শর্মিলা ঠাকুর, গুলজার, অপর্ণা সেনরা। মৃণাল সেন, ঋত্বিক ঘটক, উৎপল দত্তদের ‘বসুমতী’ পত্রিকায় সত্যজিৎ নিয়ে ইতিপূর্বে লেখাও পুনর্মুদ্রিত হচ্ছে ওই গ্রন্থে। স্বামীকে নিয়ে বিজয়া রায়ের মূল্যবান স্মৃতিচারণা ফিরে এসেছে। শ্যাম বেনেগাল, আদুর গোপালকৃষ্ণণ, গৌতম ঘোষদের স্মৃতিচারণায় থাকছেন আকিরা কুরোসাওয়া, মার্টিন স্কোরসেজিও।

[আরও পড়ুন: ‘ডান্স ডান্স জুনিয়রে’র দ্বিতীয় সিজনে মিঠুন, দেব, মনামীর সঙ্গে থাকছে লাড্ডুও, প্রকাশ্যে আগাম ঝলক]

পুরসভার মুখ্যপ্রশাসক পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের অনুরোধে গ্রন্থনায় মুখ্য উপদেষ্টার দায়িত্ব অত্যন্ত নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করেছেন সন্দীপ রায়। বস্তুত তাঁর আগ্রহেই এই সংখ্যায় বাংলা চলচ্চিত্রে অপুর স্রষ্টার অজস্র অনালোচিত দিক ও দুর্লভ ছবি প্রকাশিত হবে। ফেলুদা-জটায়ু-তোপসে থেকে গোয়েন্দা সিরিজের শঙ্কু-পর্ব, সন্দেশ পত্রিকার নানা রচনা সৃষ্টির অজানা কাহিনিও থাকছে। বাবার নানা কর্মকাণ্ড ও শুটিং জোনের ব্যক্তিগত জীবনের প্রচুর অপ্রকাশিত ছবিও ব্যবহার করতে দিয়েছেন সন্দীপ রায়। বইটির বিশেষ উপদেষ্টা রত্না শূরের কথায়, “প্রকাশ হতে চলা স্মারকগ্রন্থে ‘অগ্রন্থিত’ বিভাগে থাকছে স্বয়ং সত্যজিতের লেখা ‘গড়পাড়ের বাড়ি’, রেনেসাঁ অফ নন্দলাল বোস মাস্টার মশাই, দ্য আউট লুক ফর বেঙ্গলি ফিল্মস। আর সন্দীপবাবু লিখেছেন ঠাকুমাকে লেখা বাবার চিঠি।”

পুরশ্রীর বিশেষ সংখ্যা নিয়ে পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের দাবি, “বাংলার নবজাগরণের সমুজ্জ্বল উত্তরাধিকারী সত্যজিতের বহুমুখী ভাবনা, প্রয়োগ, মনভাব ও অনুভবের বর্ণচ্ছটা সীমিত পরিসরে ধরার চেষ্টা হয়েছে।” গ্রন্থের ‘অভিবাদন’ বিভাগে ঋত্বিক ঘটকের ‘একমাত্র সত্যজিৎ রায়’, মৃণাল সেনের ‘অপুর অন্তহীন যাত্রাপথে’, উৎপল দত্তর ‘বিপ্লবী সত্যজিৎ’ শীর্ষক রচনা পাঠকদের নতুন করে সেদিনের কথা শোনাবে। সহযোদ্ধা সত্যজিৎকে নিয়ে ঋত্বিক বা মৃণাল সেনদের লেখা বসুমতী থেকে ‘পুরশ্রী’তে পুণর্মুদ্রিত হয়েছে। গুলজার তাঁর ‘অভিবাদন’ কলমে লিখেছেন, সত্যজিৎ নামেই বলিউডে শুধু শ্রদ্ধা নয়, অমোঘ আকর্ষণ ছিল। শীঘ্রই প্রকাশিত হতে চলা স্মারকগ্রন্থটির মুখ্য সম্পাদক কবি জয় গোস্বামী। সম্পাদকমণ্ডলীতে সঞ্জয় মুখোপাধ্যায়, দেবাশিস মুখোপাধ্যায় ও অভীক মজুমদার এবং প্রচ্ছদ কৃষেন্দু চাকীর। প্রকাশের পর পুরসভার নিজস্ব কাউন্টার ও স্টল ছাড়াও কলেজ স্ট্রিট বইপাড়াতেও বিক্রির ব্যবস্থা করা হচ্ছে। মূল্য ৩০০ টাকা।

[আরও পড়ুন: ফের বড়পর্দায় স্বামী-স্ত্রী আবির ও নুসরত, প্রকাশ্যে দুই তারকার ‘ডিকশিনারি’ লুক]





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *